রবিবার ১৪ অগাস্ট ২০২২ ৩০শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ডিমলায় বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যুৎ সরবরাহ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধিঃ জাহাঙ্গীর আলম রেজা : বিলুপ্ত ছিটমহলবাসী’কে জরুরী ভিত্তিত্বে বিদ্যুৎ দেওয়ার উদ্যোগ নেওয়ায়। পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতায় প্রথম পর্যায় গতকাল বৃহঃবার ৬টি ছিটমহলে বিদ্যুৎ সরবাহ করা হয়েছে। আর ২৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলগুলোর বিদ্যুৎ দেয়া হবে আগামী ডিসেম্বর মাসে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে স্থলসীমান্ত চুক্তির পর দুই দেশের মধ্যে ১৬২টি ছিটমহল বিনিময় হয়েছে। ভারতে ৫১টি ও বাংলাদেশে ১১১টি। বাংলাদেশের ছিটমহলের ৫৯টি লালমনিরহাটে, ৩৬টি পঞ্চগড়ে, ১২টি কুড়িগ্রামে ও ৪টি নীলফামারীতে। এর মধ্যে ৫২টি ছিটমহল পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতায় পড়লেও ২০টি ছিটমহলে নেই কোন জনবসতি। বাংলাদেশ ও ভারতের অমীমাংসিত স্থান হওয়ায় সেখানে এতদিন কোনো বিদ্যুতের লাইন বসানো হয়নি। গত পহেলা আগষ্ট থেকে এই এলাকা বাংলাদেশের নিজস্ব সম্পত্তি হওয়ায় সেখানে দ্রুত বিদ্যুৎ দেওয়ার উদ্যোগ সফল করা হলো। কর্মপরিকল্পনা অনুযায়ী বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড ও পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড তাদের আওতায় থাকা ওই সব বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যুৎ সরবরাহে নতুন লাইন নির্মাণ করেছে। এর ফলে ১৪ হাজার ৫শ বাড়ীতে বিদ্যুৎ সংযোগ সুবিধা দেওয়া সম্ভব হবে। যা ১৫ অক্টোবর বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলো ৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলে। সুত্র মতে আগামী ৩ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নীলফামারীর চারটি বিলুপ্ত ছিটমহলের ৫ দশমিক ০৫৩ কিলোমিটার বিতরন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ২৩২ জন গ্রাহক, কুড়িগ্রাম জেলার একটিতে শুন্য দশমিক ৮৭ কিলোমিটার বিতরনের লাইন নির্মানের মাধ্যমে ৭১ জন গ্রাহক ও পঞ্চগড়ের বোদা উপজেলায় একটি ছিটমহলে ৫ কিলোমিটার বিতরন লাইন নির্মানের মাধ্যমে ১৪২ জন সহ মোট ৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলের ৪৪৮ জন গ্রাহক কে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হলো। ৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যুত সরবরাহ লাইনের কাজ শেষে হলে বৃহঃবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার দাশিয়ারছড়া কালিরহাটের বাজার সংলগ্ন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে একযোগে ১৯০৬ টি পরিবারের মাঝে বিদ্যুৎ সংযোগের উদ্বোধন ও মুজিব ইন্দিরা নামে দাশিয়াছড়া ইউনিয়ন পরিষদের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন। এ সময় বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যুৎ আলো জ্বালিয়ে তা আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ধোধন করেন। সেই সাথে নীলফামারীর ডিমলায় ৪ টি বিলুপ্ত ছিটমহল প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে বৈদ্যুতিক লাইন উদ্বোধন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, নীলফামারী-১(ডোমার-ডিমলা) আসনের সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন সরকার। টেপাখড়িবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান রবিউল ইসলাম সাহিনের সভাপতিত্বে বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন নীলফামারী জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান তবিবুল ইসলাম,ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রেজাউল করিম,সহকারী কমিশনার (ভুমি) মিল্টন চন্দ্র রায়, নীলফারীর পল্লী বিদ্যুৎ জেনারেল ম্যানেজার এনামুল হক, নীলফামারী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সভাপতি হাবিবুর রহমান,ডিমলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রুহুল আমীন খান, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক সহিদুল ইসলাম ও দপ্তর সম্পাদক জহুরুল ইসলাম ভূইয়া। সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, বিদ্যুতের লাইন নিতে গ্রাহককে একটি নির্দিষ্ট অঙ্কের অর্থ জমা দিতে হয়, কিনতে হয় মিটার। কিন্তু এসব এলাকায় গ্রাহকদের কিছুই প্রয়োজন হয়নি। যারা আবেদন করেছেন, সরকারের উচ্চপর্যায় থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত মোতাবেক তাদের বাড়িতে বিনামূল্যে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছে। নীলফামারী পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মো. এনামুল হক জানান, নির্দেশনা অনুযায়ী এ সমিতির আওতায় নীলফামারীর ডিমলা উপজেলায় অন্তর্ভুক্ত চারটি বিলুপ্ত ছিটমহলের জনপদের অংশ বিশেষে পাঁচ কিলোমিটার সরবরাহ লাইন নির্মাণ এবং ২৩২টি বাড়িতে বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়া হয়েছে। আরইবির পাওয়া এক নির্দেশ অনুযায়ী বিদ্যুৎ লাইন স্থাপন ও সরবরাহের জন্য সকল কার্যক্র শেষ করা হয়েছে। বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান (আরইবির) চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মঈন উদ্দিন বলেন, প্রাথমিকভাবে ৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলে বিদ্যুৎ লাইন স্থাপনের মাধ্যমে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হলো। আর বাকী ২৬টি বিলুপ্ত ছিটমহলে ২০০ দশমিক ৬৬ কিলোমিটার লাইন নির্মান করে ৮হাজার ১৫৯ জন গ্রাহককে আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। এদিকে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) রংপুর জোনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী শাহাদত হোসেন সরকার জানান, পিডিবির আওতায় থাকা বিলুপ্ত ৫৯টি ছিটমহলে আগামী ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বিদ্যুৎ সরবরাহ এবং তা বাস্তবায়নে কাজ দ্রুত গতীতে এগিয়ে চলছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email