শুক্রবার ১৯ এপ্রিল ২০২৪ ৬ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

তেতুঁলিয়ায় এ্যাকুয়া ব্রিডার্স লিঃ এর বিষাক্ত বর্জ্যে কৃষকদের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি

মোঃ এনামুল হক পঞ্চগড় প্রতিনিধি : অবশেষে তেতুঁলিয়ায় অবস্থিত প্যারাগন গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান এ্যাকুয়া ব্রির্ডাস লিমিটেড গত আমন মৌসূমে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদেরক ক্ষতিপূরন দিলেন । জানাগেছে, বয়লার মুরগীর বাচ্চা উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত ওই কারখানার দুষিত বর্জ্যে আশপাশের ২৪ জন কৃষকের প্রায় ৯.১২ একর জমির ধান সর্ম্পূনরুপে নষ্ট হয়ে যাওয়ায় তারা হতাশায় পড়ে যায়। তারা কোন কুলকিনারা না পেয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বরাবরে লিখিত অভিযোগ আনেন। এরপ্রেক্ষিতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো.রেজাউল করিম শাহীন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইকবাল হোসেনকে প্রধান করে ৪ সদস্যের একটি টীম গঠন করে দেন। পরবর্তীতে ওই কমিটি সরজমিনে তদমত্ম সাপেক্ষে ঘটনার সত্যতা পান। তদন্ত টীম তাদের প্রতিবেদন দাখিল করেন। সূত্র মতে,তদন্তে দেখা যায়, ২৪ জন কৃষকের মোট তিগ্রসত্ম জমির পরিমান দাঁড়ায় ৯.১২ একর। স্থানীয় উপজেলা প্রশাসনের যথাযথ ব্যবস্থায় প্রতি একরে ৩৫ মন ধান অথবা প্রতিমন ধান ৬৬০ টাকা দরে প্রদানের জন্য নির্দেশ প্রদান করেন। এরপর প্যারাগন গ্র্প কর্তৃপÿ গত ২১/১২/১৪ ইং ওই ক্ষতিগ্রস্ত ২৪ জন কৃষককে মোট ২ লাখ ১৯ হাজার ৮০০ টাকা প্রদান করেন। উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পারিবারিক কাজে ঢাকায় অবস্থান করায় উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মো.ইকবালহোসেন এই টাকা বিতরন করেন বলে জানা গেছে। এব্যাপারে ভাইস চেয়ারম্যান মো. ইকবাল হোসেনের সাথে কথা বললে তিনি জানান, উপজেলা নিবার্হী অফিসারের নির্দেশে এবং উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের অনুপস্থিতিতে আমি প্রত্যেক কৃষককে তাদের পাওনা বুঝিয়ে দেই্ । এসময় অত্র শালবাহান ইউপি চেয়ারম্যানমো. মতিয়ার রহমান, মহিলা ভাইসচেয়ারম্যান সুলতানা রাজিয়া, ওই ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো: ফজুলল হক উপস্থিত ছিলেন বলে তিনি জানান। ভাইস চেয়ারম্যানমো. ইকবালহোসেন আরো বলেন, আগামীতে এমন ক্ষতি হবে না বলে প্যারাগন কর্তৃপক্ষ অঙ্গীকার করেছে। কৃষকরা আর ফসলের ক্ষতি দেখাতে চায়না। এজন্য তারা প্রতিষ্ঠানটির প্রতি প্রশাসনের সঠিক নজরদারীর দাবী জানিয়েছেন।

Spread the love