শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ ২রা আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

দর্শকনন্দিত সেরা পাঁচ বাংলাদেশি ওয়েব সিরিজ

সময়ের পথে হেঁটে নতুনত্বের কাঁধে ভর করে মাধ্যম বদলের হাওয়া লেগেছে বিনোদন অঙ্গনে। বিশেষত করোনার ঘরবন্দী দিনগুলোতে বিদেশী নির্মাণের পাশাপাশি দর্শক দেশীয় নির্মাতাদের ওয়েব সিরিজও সমানতালে উপভোগ করছেন বিভিন্ন ওটিটি প্ল্যাটফর্মে।

ওভার দ্য টপ (ওটিটি) প্ল্যাটফর্ম হলো যেখানে দর্শকরা ইন্টারনেট ব্যবহার করে নির্দিষ্ট টাকার বিনিময়ে নিজের ঘরে বসে স্মার্টফোন, স্মার্ট টিভি, কম্পিউটার বা ল্যাপটপে বিনোদনমূলক ওয়েব সিরিজ এবং সিনেমা দেখতে পারেন।

বাংলাদেশে ওয়েব সিরিজের কনসেপ্ট নতুন হলেও ওয়েব সিরিজের প্রতি দর্শকের চাহিদা নতুন নয়। বাংলাদেশী মান সম্মত ওয়েব কনটেন্ট না পেয়ে দেশী দর্শকেরা এতদিন বিদেশী কনটেন্টের উপরই নির্ভরশীল হলেও, সম্প্রতি কিছু দেশীয় ওয়েব সিরিজ সকলের প্রশংসা কুড়িয়েছে। এর মধ্য থেকেই দর্শকনন্দিত সেরা পাঁচটি ওয়েব সিরিজের সারসংক্ষেপ তুলে ধরা হলো।

তাকদীর
ওটিটি প্লাটফর্ম হইচই-এ মুক্তি পাওয়া বাংলাদেশী ওয়েব সিরিজটি মুক্তির পরপরই দেশের পাশাপাশি ভারতেও রীতিমত ঝড় তুলে দিয়েছিল। 

প্রধান ভূমিকায় অভিনয় করা চঞ্চল চৌধুরী ওরফে তাকদীর একজন লাশবাহী গাড়ির ড্রাইভার। একদিন তার গাড়ির ভেতর একজন অচেনা মহিলার লাশ পাওয়া যায়। যা দেখে তাকদীর অবাক এবং রীতিমত ভয় পেয়ে যান। বেওয়ারিশ লাশটিকে নিয়ে সে কি করবে এখন এই চিন্তায় যখন অস্থির তখনই একটি অচেনা নাম্বার থেকে কল দিয়ে লাশটি চাওয়া হয়, তাকদীরকে দেয়া হয় হুমকি। ছোটভাই মন্টুকে নিয়ে সে আরো রহস্যে জড়িয়ে যায়। 

মন্টু চরিত্রে অভিনয় করে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছেন নবাগত সোহেল মন্ডল।

সৈয়দ আহমেদ শাওকি পরিচালিত সিরিজটিতে প্রধান চরিত্রে রয়েছেন চঞ্চল চৌধুরী, মনোজ কুমার প্রামানিক, সানজিদা প্রীতি, পার্থ বড়ুয়া ও সোহেল মন্ডল।

অগাস্ট ফোর্টিন
বাড়ির কেয়ারটেকার কে বোকা বানিয়ে ভোরবেলাই বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় তুশি। সব তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ করে পুলিশ বুঝতে পারে স্ত্রী সহ নিহত পুলিশ কর্মকর্তার বড় মেয়ে তুশিকে পেলেই খুলবে রহস্যের জট। কিন্তু কেউ জানেনা তুশি কোথায় আছে। 

এরপর গল্পের মোর কোন দিকে ঘোরে, কি হয় তা নিয়েই এগিয়েছে এই ওয়েব সিরিজটি।

শিহাব শাহীনের চমৎকার স্টোরি ডেলিভারি ও মেকিং এ ২০১৩ সালের একটি সত্য ঘটনার উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে এই ওয়েব সিরিজটি। মেয়ে ঐশীর হাতে খুন হওয়া তার মা ও পুলিশ কর্মকর্তা বাবার চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডকে নিপুনভাবে ফুটিয়ে তোলেন পরিচালক।

ওয়েব সিরিজটিতে প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেন তাসনুভা তিশা, শতাব্দী ওয়াদুদ, শহীদুজ্জামান সেলিম ও মনিরা মিঠু। 

মহানগর
হালের সবচেয়ে আলোচিত ওয়েব সিরিজটি একটি রাতের গল্প, রুদ্ধশ্বাস সাতটি ঘন্টার গল্প নিয়ে নির্মিত। মহানগরের বুকে ঘটে যাওয়া একটি দুর্ঘটনা, আর সেই দুর্ঘটনাকে ধামাচাপা দিতে নানা আয়োজনের ফন্দি-ফিকির নিয়ে পরিচালক আশফাক নিপুণ বানিয়েছেন তার নতুন ওয়েব সিরিজ মহানগর। ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম হইচই-য়ে এই ওয়েব সিরিজটি মুক্তি পায়।

আশফাক নিপুনের নির্মাণে ওসি হারুনের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন মোশাররফ করিম। দুই বাংলার দর্শক মুগ্ধ তার অভিনয়ে। বিশেষত সোশ্যাল মিডিয়া এখন ওসি হারুনের সংলাপে সয়লাব।

এ ছাড়াও অভিনয়ে ছিলেন জাকিয়া বারী মম, শ্যামল মাওলা, লুৎফর রহমান জর্জ, মোস্তাফিজুর নুর ইমরান, নাসিরউদ্দিন খান, শাহেদ আলী প্রমুখ।

দর্শক এখন ওয়েব সিরিজটির দ্বিতীয় সিজনের জন্য অপেক্ষায়।

ঢাকা মেট্রো
বিলাসবহুল জীবন, সুন্দরী স্ত্রীসহ সব নাগরিক বাস্তবতাকে পেছনে ছুঁড়ে ফেলে কুদ্দুস যাত্রা করে অজানার পথে। এই চলার পথে তার সঙ্গে দেখা হয় কিছু অদ্ভুত চরিত্র ও হয় অদ্ভুত সব অভিজ্ঞতা, যা দর্শকদের অনেকটা পরাবাস্তবতার জগতে নিয়ে যায়। ‘ঢাকা মেট্রো’ ওয়েব সিরিজে যা দূর্দান্তভাবে তুলে এনেছেন স্বনামধন্য নির্মাতা অমিতাভ রেজা চৌধুরী। 
 
অপি করিমের মতো শক্তিশালী অভিনেত্রীর পাশে সিরিজটিতে নিজেকে সদর্পেই উপস্থাপন করেছেন বাস্তব জীবনের বড় কর্পোরেট কর্মকর্তা নেভিল ফেরদৌস হাসান। এই দুই প্রাপ্তবয়স্কের সঙ্গে তাল মিলিয়ে নিজের সেরাটা দিয়েছে মাদ্রাসা পালানো দার্শনিক বালকের চরিত্রে অভিনয় করা ক্ষুদে শিল্পী শরীফুল ইসলামও।

সিরিজটির প্রতিটি পর্বেরই রয়েছে আলাদা আলাদা নাম। ‘সম্পর্ক’, ‘বিচ্ছিন্নতা’, ‘নিষ্কৃতি’, ‘ঘেরাটোপ’, ‘মুক্তাঞ্চল’, ‘নির্বেদ’ ও ‘অগস্ত্য যাত্রা’।

মাইনকার চিপা
মাইনকার চিপা মুক্তি পায় দক্ষিণ এশিয়ার সবচেয়ে জনপ্রিয় ও ভারতীয় ওটিটি প্ল্যাটফর্ম জি ফাইভ-এ। মুক্তির পরপরই ব্যাপকভাবে জনপ্রিয় হয়ে উঠে মাইনকার চিপা।

গল্পে দেখা যায়, পুলিশ কর্মকর্তা সেজে মাদকাসক্ত শরিফুল রাজ এবং মাদক ব্যবসায়ী শ্যামল মাওলাকে ‘মাইনকার চিপায়’ ফেলে দেন আফরান নিশো। ঘটনা পরিক্রমায় জাদুর শহরে তিনজনেই পরে যান কঠিন পরিস্থিতিতে।

আবরার আতহার পরিচালিত থ্রিলার ও ডার্ক কমেডি ধাঁচের ওয়েব সিরিজটিতে অভিনয় করেছেন বর্তমানের জনপ্রিয় তিন শিল্পী আফরান নিশো, শ্যামল মাওলা ও শরিফুল রাজ। 

নির্মাণ ও প্রদর্শনে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, গল্প, গান, অ্যাকশন, লোকেশনে বৈচিত্র্য- সব মিলিয়ে এ দেশেও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে ওয়েব সিরিজ। সাধারণ টেলিভিশন মিডিয়া থেকে কিছুটা আলাদা ওয়েব সিরিজ। যেখানে সেন্সরশীপ না থাকায় নির্মাতাদের রয়েছে অবাধ স্বাধীনতা। তবে শিল্প এবং রুচিবোধের চিহ্ন রেখেই নির্মাতারা নতুনত্বের স্বাদ উপহার দেবেন, এমনটাই দর্শকদের প্রত্যাশা।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email