রবিবার ১ অক্টোবর ২০২৩ ১৬ই আশ্বিন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরের জালনোট ব্যবসায়ী গাজী জাহাঙ্গীরকে গণধোলায়ের পর পুলিশের হাতে তুলে দেয়

মোঃ বেলাল হোসেন, দিনাজপুর : মোবাই ফোন বিকাশ ব্যবসার আড়ালে জাল নোট ব্যবসা করতে গিয়ে ধরা পড়ায় বিকাশ ব্যবসায়ী দোকানদার গাজী জাহাঙ্গিরকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছেন এলাকার মানুষ। ঘটনাটি ঘটেছে জেল রোডস্থ দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয় গেট সংলগ্ন বিকাশ ও ফ্লেক্সিলোডের দোকানে। জাল টাকা ব্যবসায়ী একটি চক্রের সহিত জড়িত জাহাঙ্গীর দীর্ঘদিন থেকে বিকাশ ব্যবসার মাধ্যমে গ্রাহকদের হাতে জাল টাকা তুলে দিতেন বলে অভিযোগ রয়েছে। কয়েকদিন আগে শহরের সুইহারী এলাকার জনৈক ব্যক্তি জাহাঙ্গিরের দোকান থেকে বিকাশ এর টাকা উত্তোলন করতে গেলে তাকে কয়েকটি নোটের সাথে একটি হাজার টাকার জাল নোট দেওয়া হয়। গ্রাহকের সন্দেহ হলে টাকা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর জাল টাকার প্রমাণ পাওয়া যায় এসময় গ্রাহক ও জাহাঙ্গীরের মধ্যে তর্ক-বির্তক শুরু হয়। জাল নোটটি ফেরত দিতে চাইলে তা নিতে অস্বীকার করে জাহাঙ্গীর এসময় মারমুখি হয়ে উঠে জাহাঙ্গীর, সে কিল, ঘুষি ও লাঠি দিয়ে আক্রমণ করে বসে এতে লাঠির আঘাতে গ্রাহকের সাথে থাকা তার স্ত্রীর কপালের অংশ আহত হয়। এ ঘটনার প্রেক্ষিতে সেখানে উপস্থিত লোকজন ও আশে পাশের লোকজনরা ছুটে এসে জাহাঙ্গীরকে গণধোলাই শুরু করে ও পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। রেল বাজারের নিকট নতুন পাড়া নিবাসী মৃত সোলাইমান এর পূত্র গাজী জাহাঙ্গির বলে জানা যায়।

গাজী জাহাঙ্গীর পূর্বে সংবাদপত্র বিক্রেতা হকার পরে ঈদমার্কেটে ফুটপাতে বসে খিঁচুরী-বিরিয়ানী বিক্রয় করত। সব শেষে খাতা-কলমের দোকানে ফ্লেক্সিলোড ও বিকাশ ব্যবসার আড়ালে জাল নোটের ব্যবসা চালাত। বুক ফুলিয়ে জাল নোট ব্যবসায় করার জন্য ঢাল হিসাবে ব্যবহার করত ’গাজী’ নামের একটি অনিয়মিত সাপ্তহিক পত্রিকাকে। অন্যদিকে ঘটনাটি ঘটার পর জাহাঙ্গীর চক্রের লোকজনকে আর দেখা যায় না জেলরোড ও তার আশে পাশে।

 

Spread the love