সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরে ডাকাত সন্দেহে ৮ র‌্যাব সদস্যকে আটক করে এলাকাবাসী

মোঃ মনজুরুল আলম, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

 

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ডাকাত সন্দেহে ৮ র‌্যাব সদস্যকে আটক করে উত্তেজিত জনতা। বিক্ষুদ্ধ জনতার হামলায় ৫ র‌্যাব সদস্য আহত হয়। জীবন রক্ষার্থে ৮ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুড়ে র‌্যাব সদস্যরা। এ সময় সমকাল সাংবাদিক মাহমুদুর রহমান ও ইনকিলাব প্রতিনিধি এমএ জলিল সরকার ও কালের কণ্ঠ আব্দুল কাদির আহত হন।

 

সোমবার রাত ৮টায় উপজেলার বেলাইচন্ডি ইউনিয়নের সৈয়দপুর-পার্বতীপুর সড়কের গ্রামীন ব্যাংক অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এতে পার্বতীপুর-সৈয়দপুর সড়ক ২ ঘন্টা অবরোধ করে রাখে উত্তেজিত জনতা।

 

সংবাদ পেয়ে পার্বতীপুর, সৈয়দপুর, চিরিরবন্দর থানা পুলিশ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহেনুল ইসলাম এবং র‌্যাবের কয়েকটি টিম ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনার চেষ্টা করে।

 

পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক্রাইম) সাখাওয়াত হোসেন, পুলিশের এসএসপি সদর সার্কেল সুশান্ত কুমার, রংপুর র‌্যাব-১৩ এর কমান্ডিং অফিসার লেঃ কর্নেল কিসমত হায়াত ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসলে রাত সোয়া ১০টার দিকে আটককৃত র‌্যাব সদস্যদের উদ্ধার করে নিয়ে যায় র‌্যব সদস্যরা।

 

তবে অভিযানে অংশ নেওয়া র‌্যাব সদস্যদের নাম পরিচয় দিতে অস্বীকৃতি জানান র‌্যাব কমান্ডার লেঃ কর্ণেল কিসমত হায়াত।

 

PARB-02জানাযায়, সোমবার রাত ৮টার দিকে র‌্যাবের একটি অগ্রগামী টিম সাদা পোষাকে মাদক অভিযানে আসে। এ সময় তারা মনোয়ারুল আজিজ(২৭) নামের এক মাদক ব্যক্তিকে ইয়াবাসহ গ্রেফতার করে মটর সাইকেলে করে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এসময় মনারুলের চিৎকারে এলাকাবাসী ডাকত সন্দেহে র‌্যাব সদস্যদের ঘিরে ফেলে। মনোরুলের বাড়ী নীলাফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলার লক্ষনপুর চৌধুরী পাড়া গ্রামে তার পিতার নাম আমিজ উদ্দিন।

 

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুর মোঃ রাজা বলেন, পার্বতীপুর- সৈয়দপুর সড়কের বেলাইচন্ডি বাজারে গত ১৫ দিনে দুটি ডাকাতির ঘটনা ঘটে। গত ১৫ দিন আগে সৈলাস, নুর হোসেনের এবং এক সপ্তাহ আগে আইয়ুব, আরেফ, মনির ও ডাঃ জামানের দোকানে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। একই সড়কের একই এলাকায় মনারুলের চিৎকারে এলাকাবাসী ডাকত সন্দেহে র‌্যাব সদস্যদের চার দিক থেকে ঘিরে ফেলে। এ সময় উত্তেজিত জনতা চিনতে না পেরে র‌্যাব সদস্যদের উপর হামলা চালায়। এসময় জীবন রক্ষার্থে র‌্যাব সদস্যরা গুলি ছুড়লে উত্তেজিত জনতা র‌্যাব সদস্যদের ঘিরে ফেলে সড়ক অবরোধ করে রাখে।

 

রংপুর র‌্যাবের সিও কর্ণেল কিসমত হায়াত বলেন, র‌্যাবের ৮ সদস্যের একটি অগ্রগামী টিম মাদক ব্যবসায়ীদের ধরার জন্য সাদা পোষাকে অভিযানে এসেছিল। কিন্তু জনগন তাদের চিনতে না পারায় ভূলবুঝাবুঝির সৃষ্টি হওয়ায় এ ঘটনা ঘটেছে।

 

পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি তদন্ত আঃ রাজ্জাক বলেন, এলাকাবাসী ডাকাত ভেবে র‌্যাব সদস্যদের সাথে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিল। ভূলবুঝাবুঝির কারনে এ ঘটনা ঘটেছে। তিনি ৮ রাউন্ড গুলির কথা নিশ্চিত করেন।

 

Spread the love