শনিবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১১ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরের হাকিমপুর থানার ওসিসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি মামলা

রোমেন বসাক, ষ্টাফ রিপোর্টার, হাকিমপুর : জেলার হাকিমপুর থানার ওসি, এসআইসহ ৩ জনের বিরুদ্ধে আদালতে চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেছেন জোবাইদুল ইসলাম নামে এক মাছ (মৎস্য) ব্যবসায়ী ।

 

বৃহস্পতিবার দুপুরে দিনাজপুর ১ম শ্রেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে এই মামলাটি দায়ের করেন তিনি। তিনি ঘোড়াঘাট উপজেলার চোপাগাড়ী গ্রামের মৃত: আফতাবউদ্দিন মন্ডলের ছেলে।

 

এই মামলায় হাকিমপুর থানার ওসি মোখলেছুর রহমান, এসআই মতিউর রহমান ও পলাশ সরকারকে আসামী করা হয়েছে।

ওই আদালতের বিচারক সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট রেজাউল বারী মামলাটি গ্রহন করে আগামী ৪ মে’র মধ্যে দিনাজপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ)কে প্রতিবেদন দাখিলের আদেশ প্রদান করেছেন।

 

মামলার বিবরণে জানা যায়, গত ৫ জানুয়ারী বিকাল ৩ টায় মোটরসাইকেলযোগে ব্যবসায়ী জোবাইদুল ইসলাম হাকিমপুর থানার হিলির চারমাথা এলাকায় গেলে এসআই মতিয়ার রহমান তার মোটরসাইকেল থামিয়ে মালিকানার কাগজপত্র দেখতে চায়। কিন্তু তার নিকট তাৎক্ষনিক কাগজপত্র না থাকায় বাড়ি থেকে এনে দিতে চায়। পরে সে বাড়িতে গিয়ে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে আশরাফুল ইসলাম নামে একজনকে সঙ্গে নিয়ে কাগজপত্রসহ থানায় গেলে থানার ওসি মোখলেছুর রহমানের কক্ষে এসআই মতিয়ার ও পলাশ মোটরসাইকেলের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র না দেখে ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। এ সময় ব্যবসায়ী জোবাইদুল চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে তাকে চড়-থাপ্পর ও মৃত্যুর ভয় দেখায় অভিযুক্তরা। পরে বাদী জোবাইদুল ইসলামকে থানায় আটকে রাখে ও তার সাথে থাকা আশরাফুল ইসলামকে ধাক্কা দিয়ে থানা থেকে বের করে দেয়। এ সময় উক্ত পুলিশ সদস্যরা আশরাফুল ইসলামকে এক লাখ টাকা চাঁদা না দিলে বাদিকে মিথ্যা ডাকাতি ও পেট্রোল বোমা মামলায় জড়ানো হবে বলে জানায়।

পরে আশরাফুল ইসলাম থানায় এসে এসআই মতিয়ার রহমানের মাধ্যমে ওসিকে ২০ হাজার টাকা দিলেও ব্যবসায়ী জোবাইদুল ইসলামকে ছেড়ে না দিয়ে পরের দিন একটি ডাকাতি মামলায় আদালতে চালান দেয়। পরে ১০ জানুয়ারী ওসি ও এসআইয়ের ইঙ্গিতে ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ দ:বি: আইনের ৩৯৪ ধারায় আরও একটি মামলায় তাকে পুন:গ্রেফতার দেখায়।

গত ৯মার্চ বিজ্ঞ আদালত হতে জামিন নিয়ে মুক্তিলাভ করেন ব্যবসায়ী মোঃ জোবাইদুল ইসলাম। মুক্তির পর অসুস্থ হয়ে পড়ে। সুস্থ হওয়ার পর ২এপ্রিল আদালতে মামলা করে সে।

বাদি পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করছেন আইনজীবী গোলাম ফারুক মিনহাজুল, শাহ্ দোরখ শান (এডমিরাল), নুরুল ইসলামসহ প্রমুখ।

 

Spread the love