রবিবার ২৬ জুন ২০২২ ১২ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরের ৭টি পৌরসভায় ভিজিএফ’র চাল বিতরণে অনিয়ম, তদন্ত কমিটি গঠন

দিনাজপুরে পবিত্র ঈদ-উল ফিতরের দরিদ্রদের মাঝে ভিজিএফএ’র চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ তদন্ত করতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেটের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। গঠিত তদন্ত কমিটি আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে সময়সীমা বেধে দেয়া হয়েছে। দিনাজপুর জেলা প্রশাসক আহমদ শামীম আল রাজী জানান, আজ শনিবার দিনাজপুর পৌরসভাসহ জেলার ৯টি পৌরসভায় পবিত্র ঈদ-উল ফিতর উদ্যাপনে দরিদ্র জনগোষ্ঠীদের মধ্যে ভিজিএফ কার্ডের মাধ্যমে ১০ কেজি করে চাল বিতরণ কার্যক্রম চলছিল। অভিযোগ রয়েছে দিনাজপুর পৌরসভায় ভিজিএফ কার্ডধারীদের ১০ কেজির স্থলে ৩ কেজি করে চাল বিতরণ করা হলে গোলযোগ শুরু হয়। বিষয়টি অবগত হয়ে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হামিদুল হক এবং সদর সহকারী পুলিশ সুপার হাসান তারেক ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযোগের সত্যতা খুজে পায়।
তাৎক্ষনিকভাবে চাল বিতরণ বন্ধ করে দেয়া হয়। ঘটনাটির তদন্ত করতে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট তৌহিদুল আলমের নেতৃত্বে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অপর ২ সদস্য জেলা ত্রাণ ও পূণর্বাসন কর্মকর্তা হাম্মাদুল বাকী ও সহকারী পুলিশ সুপার হাসান তারেক। গঠিত তদন্ত কমিটি ২৪ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত সম্পন্ন করে জেলা প্রশাসকের নিকট প্রতিবেদন দিবেন। এরপর জেলা প্রশাসনের ব্যবস্থাপনায় কার্ডধারীদের মধ্যে ঈদের পূর্বেই চাল বিতরণ সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি জানান।
অপরদিকে জেলার ৯টি পৌরসভার মধ্যে ৭টি পৌরসভা সদর, বিরামপুর, সেতাবগঞ্জ, ফুলবাড়ী, হাকিমপুর, ঘোড়াঘাট ও বিরলে একইভাবে ভিজিএফ কার্ডের ১০ কেজি চালের স্থলে ৩ কেজি করে চাল পৌরসভার মেয়রদের নেতৃত্বে বিতরণ করে অবশিষ্ট চাল আত্নসাতের অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এসব অভিযোগগুলো সংশ্লিষ্ট উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের ২৪ ঘন্টার মধ্যে তদন্ত করে জেলা প্রশাসককে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য বলা হয়েছে। শুধুমাত্র জেলার বীরগঞ্জ ও পার্বতীপুর পৌরসভায় কার্ডধারীদের ১০ কেজি করে চাল বিতরণ করা হয়েছে বলে সূত্র নিশ্চিত করেছে।
এবারে জেলার ৯টি পৌরসভার ২৬ হাজার ১৮৬টি ভিজিএফ কার্ডের বিপরীতে ১০ কেজি করে মোট ২৬১ মেট্রিক টন ৮৬০ কেজি চাল বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। ১৩টি উপজেলায় বরাদ্দকৃত ১ লাখ ৫৯ হাজার ৮৭২টি কার্ডের বিপরীতে ১ হাজার ৫৯৮ মেট্রিক টন ৭২০ কেজি চাল বরাদ্দ করা হয়েছিল। এসব চাল গত ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে বিতরণ সম্পন্ন করা হয়েছে। তবে একই পদ্ধতিতে ১০ কেজির স্থলে ৩ কেজি করে চাল বিতরণ হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email