সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরের ৮টি উপজেলার রেল লাইনের পার্শ্বে গড়ে উঠা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ছাত্র-ছাত্রীরা

শেখ সাবীর আলী ফুলবাড়ী(দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ৮টি উপজেলার রেল লাইনের পার্শ্বে গড়ে উঠা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ছাত্র-ছাত্রীরা। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই এসব প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-ছাত্রছাত্রীরা রেল লাইনের উপর দিয়ে চলাচল করার ফলে জীবন নাশের মত দূর্ঘটনার পাশাপাশি ছোচ-খাট দূর্ঘটনা প্রায় লেগে থাকছে।

দিনাজপুরের জেলা স্কুল, দিনাজপুর মিউনিসিপাল হাই স্কুল, বাংলা স্কুল, বিরল হাই স্কুল, চিরিরবন্দর হাই স্কুল, ফুলবাড়ী জি. এম পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, বিরামপুর প্রাইমারী স্কুল, হাকিমপুরের একটি কলেজ ও স্কুল, বোচাগঞ্জের ২টি স্কুল, পার্বতীপুরের ৩টি কলেজ ও ১টি স্কুল রেল লাইনের পার্শ্বে অবস্থিত। রেলওয়ের স্টেশন, রেল লাইন জংশন খ্যাত এবং পার্বতীপুর শহরে রেল লাইনের পার্শ্বে গড়ে উঠা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলিতে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে ঐ এলাকার ছাত্র-ছাত্রীরা। রেলওয়ে জংশনের বদৌলতে গড়ে উঠা দিনাজপুরের পার্বতীপুর শহরের বেশ কয়েকটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যায়ক্রমে গড়ে উঠেছে পার্শ্ববর্তী রেল লাইন ঘেষে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে রয়েছে পার্বতীপুরের মোনিরিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, পাবলিক উচ্চ বিদ্যালয়, সরকারি ষ্টার মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় ও টেকনিক্যাল এন্ড ইনভেস্টম্যান্ট কলেজ। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে অধ্যায়নরত শত শত ছাত্র-ছাত্রীরা প্রতিনিয়ত জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রেল লাইনের উপর দিয়ে অবাদে চলাচল করছে। এভাবে চলাচল করতে যেয়ে যে কোন মুহুর্তে ঘটে যেতে পারে বড় ধরণের দুর্ঘটনা। অনেক কোমলমতি শিশুদের দেখা যায় দল বেধে রেল লাইনের উপর দিয়ে হাটছে। এ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাশ দিয়ে যাওয়া রেল লাইনকে আড়াল করতে প্রাচীর তৈরি করে দেওয়া হলে অনেকটা ঝুঁকি কমে যাবে। তা না হলে দেখা যাবে এই সমস্ত রেল লাইনের ধারে গড়ে উঠা স্কুলগুলোর শিশুরা একদিন দুর্ঘটনার কবলে পড়ে যাবে। এতে করে অনেক কোমলমতি মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের জীবন প্রদীপ নিভে যেতে পারে। ছেলে-মেয়েরা লাইনের উপর দিয়ে হাঁটতে গিয়ে পড়ে গিয়ে প্রায়ই দূর্ঘটনার কবলে পড়ে।

Spread the love