রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে অটো রিক্সা চুরির দায়ে চালক আটক

মোঃ তিমির : দিনাজপুরের বিরলে ভাড়ায় চালিত ইজি বাইক (অটো রিক্সা) ভাড়া করে চুরির দায়ে চালক ইয়াকুব আলী (২৬) নামের এক যুবককে আটক করে ৭নং বিজোড়া ইউপি সদস্য শফিকুর রহমান বাবুর মাধ্যমে ওই ইউনিয়ন পরিষদে তুলে দেয় চুরি হওয়া ইজিবাইকের মালিক সহ এলাকাবাসীরা। পরে শালিসের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ায় একটি চক্রের তৎপরতা চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

আটক ইয়াকুব আলী উপজেলার ৭নং বিজোড়া ইউপির বিজোড়া দানেশপাড়া গ্রামের মোঃ তালেব এর পুত্র ও ওই অটো রিক্সার চালক।

 

সমবার বেলা ১২ টার দিকে শালিশের সময় থাকলে একটি স্থানীয় চক্র মোটা অংকের টাকা হাতিচ্ছেমত শালিশ করে দেবে বলে অভিযোগ করেছে এলাকাবাসী সহ ওই অটো মালিক।

 

এ ব্যপারে আটক ইযাকুব বলে, স্থানিয় মোস্তাক, শাহিন, পলাশ সহ আরো কয়েকজন আমাকে শালিস করে দিতে অর্থ দাবী করেছে। যদি শালিসের মাধ্যমে হয় তাহলে তাদের টাকা দেব আর শালিশের মাধ্যমে না হলে দিবোনা এধরনের কথা হয়েছে। এছাড়া আমি আটক থাকা অবস্থায় আমার বাবা-মার কাছে কত টাকা নিয়েছে তা বলতে পারবোনা। এছাড়াও অর্থের বিষয়ে মূল হতা মোস্তাক বলে জানিয়েছেন ইয়াকুব।

 

মোসত্মাকের সাথে এ ব্যপারে কথা বললে তিনি জানান, টাকার অভিযোগ মিথ্যে। আমরা স্থানীয় কয়েকজন মিলে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে শালিসের চেষ্টা করছি। যেহেতু চালক গরীব এবং মালিকও ওই রিক্সা ভাড়া দিয়ে খায়। এছাড়া এ ব্যাপারে আমরা কয়েকজন পার্বতীপুরে যাওয়া সহ সব খরচা নিজের পকেটের টাকায় করেছি।

 

ওই ইউপি চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন বলেন, বিষয়টি আমিও শুনেছি এখন বসে দেখি কি হয়।

 

উল্লেখ্য, শুক্রবার রাত ৯টায় চুরি যাওয়া অটো মালিক আমিনুল ইসলাম ও তার পুত্র ইয়াকুবকে ওই অটো চুরির দায়ে আটক করে। প্রথমিক ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করায় অটো চুরি অস্বীকার করলে রাতে তাকে নিজেদের হেফাজতে রেখে পরদিন শনিবার স্থানীয় ইউপি সদস্য শফিকুর রহমানকে জানায়। এবং রবিবার পরিষদের হেফাজতে রাখে। এতে করে শালিশের মাধ্যমে একটি চক্র মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

 

এ ব্যপারে ইউপি সদস্য শফিকুর রহমান জানান, শনিবার জানতে পেরে আটক ইয়াকুব আলী‘কে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে বিভিন্ন রকমের কথাবার্ত বলে। একপর্যায়ে চুরির কথা স্বীকার করে বলে জেলার পার্বতীপুর উপজেলায় চুরি যাওয়া অটো বাইকটি রয়েছে। পরে তাকে সহ পার্বতীপুরে নিয়ে গেলে সেখানে বাইকটি পাওয়া যায়নি। এর পরথেকে আজ পর্যন্ন বিভিন্ন রকমের টালবাহানা দিয়ে আসছে। এতে করে বাইক মালিক ও এলাকাবাসীরা আমার মাধ্যমে আজ বিকেলে ইউপি পরিষদে হেফাজতে রাখে। এ ব্যাপারে চেয়াম্যানকে জানানো হয়েছে।

Spread the love