বুধবার ১৮ মে ২০২২ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে অবরোধে দফা দফায় সংঘর্ষ-আহত অর্ধশতাধিক, আটক ৮

Pb10দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা অবরোধও জামায়াতের ডাকা দ্বিতীয় দিনের হরতাল পালনকালে অবরোধকারী ও পুলিশের সাথে দফায় দফায় সংঘর্ষ, ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ভাংচুর, আগুন, পুলিশের গুলি ও টিয়ার সেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটেছে।

এই ঘটনায় সাংবাদিক,পুলিশ পথচারীসহ অর্ধশতাধিক আহত হয়েছে। অবরোধকারী ১০ জনকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছেন অবরোধকারীদেরকে  ছত্রভঙ্গ করতে শতাধিক রাবার বুলেট ও টিয়ার সেল নিক্ষেপ করেছে বলে জানান ।

গতকাল মঙ্গলবার শহরের অবরোধ চলাকালে শহরের ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় অবরোধকারীদের সাথে পুলিশের কয়েক দফায় দফায় সংঘর্ষ ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এ সময় নিমনগর ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। পুলিশ টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে অবরোধকারীদের ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করলে অবরোধকারীরা আরো উত্তেজিত হয়ে পুলিশের উপর পাল্টা আক্রমন করে। এক পর্যায়ে পুলিশ কোণঠাসা হয়ে পড়ে। পরিস্থিতি শামাল দিলে এলাকায় ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে। এ সংঘর্ষের ঘটনায় অবরোধকারী, পুলিশ, সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে।

মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ১৮ দলের ডাকা ৭২ ঘন্টার অবরোধ চলাকালে শহরের ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় রেললাইন অবরোধ করে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়। এ সময় অবরোধকারীরা ৪/৫ অটো রিক্সা ভাংচুর করে। এতে পুলিশ বাধা দিলে অবরোধকারীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করে। জবাবে পুলিশ লাঠিচার্জ করে ও অবরোধকারীদের লক্ষ্য করে টিয়ার সেল নিক্ষেপ করে। এতে অবরোধকারীরা আরো উত্তেজিত হয়ে পুলিশের উপর আক্রমন করে। এক পর্যায়ে পুলিশ কোনঠাসা হয়ে পড়ে।

পুলিশ বিজিবির সহায়তা চাইলে খবর পেয়ে পুলিশকে সহায়তা করতে দিনাজপুর বিজিবির ব্যাটালিয়ন কমান্ডার লে. কর্ণেল ফজলে কাদের আহমেদ নেতৃত্বে ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়। বিজিবির সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছলে বেলা ৩টার দিকে পরিস্থিতি কিছুটা শান্ত হয়। তবে এলাকায় এখনো উত্তেজনা বিরাজ করছে। রাস্তা-ঘাটা ফাকা হয়ে গেছে। লোকজন নিরাপদ আশ্রয়ে চলে গেছে। এ সংঘর্ষের ঘটনায় অবরোধকারী, পুলিশ, সাংবাদিকসহ অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়েছে।

জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুজ্জামান উজ্জল পুলিশের লাঠি চার্জ ও টিয়ার সেলের আঘাতে অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী আহত হয়েছে বলে জানিয়েছেন।

এছাড়া ১৮ দলের নেতাকর্মীরা শহরের সব ক’টি প্রবেশপথে অবস্থান নিয়ে মিছিল-পিকেটিং সমাবেশ করে। রেললাইন অবরোধ করে রাখায় মঙ্গলবারও দিনাজপুর থেকে কোন ট্রেন ছেড়ে যায়নি।

১৮ দলের নেতাকর্মীরা শহরের প্রবেশপথ ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড, মহারাজা স্কুল মোড়, সুইহারী কলেজ মোড়, পুলহাট মোড়, কাঞ্চন ব্রীজ মোড়, গোপাল বাজারসহ বিভিন্ন পয়েন্টে সকাল থেকে অবস্থান নেয়। হরতাল ও অবরোধ চলাকালে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে নেতাকর্মীরা।

এ দিকে অবরোধ চলাকালে বেলা সাড়ে ১০টায় মহারাজা স্কুল মোড়ে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুজ্জামান উজ্জল’র নেতৃত্বে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা এক বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হক হেলাল, জেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মোসত্মফা কামাল মিলন, শহর ছাত্রশিবিরের সভাপতি মতিউর রহমান, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান সরকারসহ ১৮ দলের নেতাকর্মীরা অংশগহ্রন করেন।

এছাড়া বেলা সাড়ে ১২ টায় শহরের কাঞ্চন ব্রীজ মোড়ে জেলা যুবদলের আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম ও শহর জামায়াতের আমীর এ্যাডভোকেট মোঃ তৈয়ব আলীর নেতৃত্বে এক বিশাল মিছিল করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম, সদর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মোফাজ্জলহোসেন দুলালসহ ১৮ দলের নেতাকর্মীরা অন্যান্য নেতাকর্মী অংশগ্রহন করেন।

এর আগে সকাল সাড়ে ৯টার দিকে জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব লুৎফর রহমান নেতৃত্বে ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকা বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে জেলা জামায়াতের আমীর এ্যাডভোকেট মাহবুবুর রহমান ভুট্টো, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুকুর চৌধুরী, জেলা জাগপার সভাপতি আলহাজ্ব রকিব উদ্দীন চৌধুরা মুন্না, জেলা ন্যাপ সভাপতি মঞ্জুরুল ইসলাম, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোকাররম হোসেনসহ ১৮ দলের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশগ্রহন করে।

এছাড়া জেলা বিএনরি সাবেক সাধারন সম্পাদক আশরাফুল আলম ও যুবনেতা আমিনুল ইসলাম মুন্না’রে নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা অবরোধ চলাকালে শহরের হাউজিং মোড় এলাকায় বিশাল মিছিল বের করে সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এতে বিএনপি নেতা মজিবর, বকুল, আলী আকবর, আসলাম, সামাদ, সেলিমসহ অন্যান্য নেতাকর্মী অংশগ্রহন করেন।

এদিকে অবরোধে শহরের বিভিন্ন মোড়ে ও গুরম্নত্বপূর্ণ স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পাশাপাশি ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে বিজিবির টহল দলকে নিয়মিত টহল দিতে দেখা গেছে।

পার্বতীপুর

নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ববধায়ক সরকার গঠন, আটককৃত দলীয় নেতাদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি,অবৈধ তফশিল ঘোষনা ও কাদের মোল্লার মৃত্যু পরোয়ানা জারির  প্রতিবাদে ১৮ দলীয় জোটের ডাকা হরতাল অবরোধে পার্বতীপুরে মঙ্গলবার সকালে শরিক দলের অংশ গ্রহনে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ঢাকা মোড়ে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, মিছিলে নেতৃত্ব দেন পার্বতীপুর উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও পৌর মেয়র আলহাজ্ব জেডএম মেনহাজুল হক। উপজেলা জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশ উপজেলা শাখার আমির মাওলানা মোঃ আনোয়ার হোসেন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক জালাল উদ্দিন আহমেদ, পৌর বিএনপির সাধারন সম্পাদক অধ্যাপক আনোয়ারুল কবীর বাদলসহ উপজেলা যুবদলের সভাপতি মাহফিজুল ইসলাম মাসুম, উপজেলা যুবদলের সহ-সভাপতি সোহেল মারুফ স্বপন, সাধারন সম্পাদক (চলতি দায়িত্বপাপ্ত) মাহবুর রশিদ সংগ্রাম, উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি জোবায়ের হোসেন বাবু,সাধারন সম্পাদক রায়হান আলী, পৌর ছাত্রদলের সভাপতি আরশেদ আলী,পৌর ছাত্রদলের সাধারন সম্পাদক এস এম হান্নান আশরাফি প্রিন্স, পৌর সাংগঠনিক সম্পাদক রবিউল ইসলাম বাবু প্রমুখ।

তবে মিটারগেজ সেকসনের পার্বতীপুর-দিনাজপুর, পার্বতীপুর-লালমনিরহাট-বুড়িমারি, সান্তাহার রেলপথে ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে বলে পার্বতীপুর স্টেশন মাস্টার সূত্রে জানা গেছে। অন্যান্য আন্তঃনগর ট্রেন ও মেইল ট্রেন গুলো বিলম্বে চলাচল করছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email