শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে অস্ত্র-গোলাবারুদ ও মাদকসহ বিভিন্ন প্রকার মালামাল আটক করেছে বিজিবি

দিনাজপুর প্রতিনিধি : বাংলাদেশের সীমানা রক্ষা, সীমান্তে চোরাচালান দমন, সীমান্ত এলাকায় অন্যান্য অপরাধ নিয়ন্ত্রনসহ সীমান্ত ব্যবস্থাপনার সার্বিক কর্তব্য ও দায়িত্ব নিয়ে  বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের বিভিন্ন পদবীর সদস্যগণ প্রতিকুল পরিবেশের মধ্যেও নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। কখনও কখনও মাদকদ্রব্য আটকের ক্ষেত্রে দুধর্ষ চোরাচালানী কর্তৃক অনেক সময় বিজিবি সদস্যদের শারীরিক ক্ষতিসহ অঙ্গহানির মত ঘটনাও ঘটেছে। তথাপিও বিজিবি সদস্যবৃন্দ পেশাগত দায়িত্ব পালনে সর্বদাই আন্তরিকতা ও সাহসিকতার পরিচয় দিয়ে আসছেন। বর্তমান সময়ের প্রেক্ষাপটে বিভিন্ন সময়ে প্রাপ্ত গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়ন দ্বারা পরিচালিত বিভিন্ন অভিযানে গত ৬ মাসে ১৫,৪৫,৮০,৮৪৯/- টাকার অস্ত্র-গোলাবারুদ ও মাদকদ্রব্যসহ অবৈধপথে আগত বিপুল পরিমাণ ভারতীয় মালামাল আটক করতে সক্ষম হয়েছেন।

আটককৃত মালামালের মধ্যে ১ টি জাপানী পিস্তল, ২টি ম্যাগজিন, ৫ রাউন্ড গুলি, ২৪৬৭০ বোতল ফেন্সিডিল, ২৪১ বোতল লুপিকফ, ১১২১ বোতল বিদেশী মদ, ৫৭২ লিটার দেশী মদ, ৬.৯০০ কেজি গাজা, ৭৩১৮৮ টি নেশা জাতীয় ট্যাবলেট, ২২৩১৭ টি নেশা জাতীয় ইনজেকশন, ১১৪ কেজি মদ বানানোর বড়ি এবং অন্যান্য মালামালের মধ্যে শাড়ী, বাই-সাইকেল, জিরা, শার্টপিচ,ষ্টিল সামগ্রী, ইমিটেশন সামগ্রী ও ফল ফলাদি ইত্যাদি রয়েছে। উল্লেখিত চোরাইমালামাল ঢ়সমূহ পরিবহনকালে বিভিন্ন সময়ে ৪৪ জন আসামীসহ ৩৪টি মোটরসাইকেল, ৫ টি প্রাইভেট কার, ১০টি ছোট/বড় ট্রাক আটক পূর্বক সংশ্লিষ্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

এত বিপুল পরিমাণ মাদকদ্রব্য আটক হওয়ার কারণ জানতে চাইলে ৪০ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল এম জাহিদুর রশিদ,পিএসসি জানান, ‘‘ এটি বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর রুটিন অভিযান। মহাপরিচালক মহোদয়ের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে এবং নির্দেশনায় সীমান্তে চোরাচালান বন্ধে বিশেষ করে মাদক চোরাচালানকে শুন্যের কোঠায় আনতে আমরা দৃঢ় প্রতিজ্ঞ’’।

অধিনায়ক আরও বলেন আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে চোরাচালানীরা যাতে অবৈধ মালামাল দেশের অভ্যন্তরে প্রবেশ করাতে না পারে সে লক্ষ্যে ব্যাটালিয়ন সদর থেকে পৃথক পৃথক দল গঠন করে অভিযান চালানো হচ্ছে এতে সীমান্তসহ ব্যাটালিয়ন সদরের বিজিবি সদস্যগন নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। রমযান মাসে ইফতারী, সেহরীর মতো সময়গুলোতেও অত্র ইউনিটের টহল তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে, কেননা চোরাচালানীরা উক্ত সময়গুলোতে নিরাপদ ভেবে চোরালানী পন্য পাচারে বিশেষভাবে সচেষ্ট থাকে।

তিনি চোরাচালানী রোধে প্রশাসন, সমাজকর্মী, গণমাধ্যম প্রতিনিধি এবং দেশের সকল বিবেকবান নাগরিকের সহযোগিতা কামনা করেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email