রবিবার ২ অক্টোবর ২০২২ ১৭ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে ইউএনওসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে সমনজারী

সরকারী নিয়মনীতি লঙ্ঘন করে কর্মচারী নিয়োগের বিরুদ্ধে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরের ইউএনও ও রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করায় বিজ্ঞ আদালত বিবাদীদের ২৮ এপ্রিল আদালতে হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেছেন।
দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলার রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগে সরকারী নিয়মনীতি লঙ্ঘনের অভিযোগে একই উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের আলমগীর কবির বাদী হয়ে সহকারী জজ আদালত চিরিরবন্দরে মামলা (নং- ১৩/১৪) দায়ের করায় মামলার ৫ বিবাদী স্কুলের পরিচালনা ও বাছাই কমিটির সভাপতি চিরিরবন্দর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানুর রহমান, প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল ওয়াহেদ, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল মান্নান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আহসান হাবিব এবং চাকুরী প্রার্থী আলোকডিহির মোঃ আমান উল্লাহের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে সমন জারী করেছেন। বিবাদীদের আগামী ২৮ এপ্রিল স্বশরীরে আদালতে হাজির হওয়ার জন্য আদেশ দেয়া হয়েছে।
মামলার এজাহারে বলা হয় যে, চলতি বছরের ১৩ জানুয়ারি চিরিরবন্দর উপজেলার রাসডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আউট সোর্সিংয়ের মাধ্যমে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। সে মোতাবেক বাদী ওই উপজেলার আলোকডিহি গ্রামের মোঃ মকবুল হোসেনের পুত্র মোঃ আলমগীর কবির দরখাস্ত করেন। এ সময় ৫ নং বিবাদী স্বহস্তে লিখিত কোন দরখাস্ত করেননি, কিংবা কোন দরখাস্তে স্বাক্ষর পর্যন্ত করেননি। এরপরও তার দরখাস্ত আমলে নিয়ে তাকে সাক্ষাৎকারপত্র দেয়া হয়। নিয়োগ নির্বাচনী পরীক্ষার ফলাফলে মোঃ আশরাফুল আলম বুলু প্রথম, বাদী দ্বিতীয় এবং মোঃ আমানউল্লাহ তৃতীয় হয়। প্রস্তুতকৃত প্যানেলের ১নং ক্রমিকের প্রার্থী মোঃ আশরাফুল আলমের বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপিত হওয়ায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ওই তালিকায় স্বাক্ষর করা হতে বিরত থাকলেও বিধি মোতাবেক অভিযোগ নিস্পত্তির জন্য কোন ব্যবস্থা নেননি। ২০ ফেব্র“য়ারি উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ আহসান হাবিব প্রথম স্থান অধিকারীকে দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী নিয়োগের জন্য ২নং বিবাদী উক্ত স্কুলের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুল ওয়াহেদকে প্রদান করেন। তাতে ৫নং বিবাদী মোঃ আমান উল্লাহকে প্রথম উল্লেখ করা হয়েছে।
মামলার বিবরণে দাবী করা হয়- প্রকৃতপক্ষে আশরাফুল আলম বুলু প্রথম স্থান অধিকার করেছে। তিনি নিয়োগ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না পাওয়ায় দ্বিতীয় স্থান অধিকারী বাদী আলমগীর কবির উক্ত পদে নিয়োগ পাবার প্রকৃত দাবীদার। বাদী আদালতের কাছে ঘোষণামূলক ও বাধ্যতামূলক ডিক্রির আবেদন করেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email