মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে ছাত্রলীগের হামলায় বিএনপি নেতা আহত

দিনাজপুর প্রতিনিধি: বিচ্ছিন্ন ঘটনার মধ্য দিয়ে ১৮ দলের ডাকা ৪৮ ঘন্টার অবরোধ শেষ হয়েছে। অবরোধ চলাকালে বিএনপির মিছিলে ছাত্রলীগের হামলায় ৮ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। ১৮ দলের মিছিল থেকে আওয়ামী লীগের উন্নয়নের ফিরিসিত্ম দিয়ে টানানো বিলবোর্ড ভাংচুর করেছে মিছিলকারীরা।

অবরোধের শেষ দিনেও দিনাজপুর শহরের সব প্রবেশপথ কার্যত অচল ছিল। শহরসহ আশপাশের কয়েকটি স্থানে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ পালন করেছে নেতাকর্মীরা।

গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় শহরের কাঞ্চন ব্রীজ মোড় এলাকা থেকে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা একটি মিছিল বের করে বালুয়াডাঙ্গা সাবস্ট্যান্ড হয়ে চাউলিয়াপট্টি মোড় অতিক্রম করার সময় আওয়ামী লীগের উন্নয়নের ফিরিস্তি দিয়ে টানানো বিলবোর্ড ভাংচুর করে। এ সময় ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা ধাওয়া করলে মিছিলটি ছত্রভঙ্গ হয়ে পালিয়ে যায়।

বেলা ১২টায় জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম’র নেতৃত্বে বিএনপির নেতাকর্মীরা দিনাজপুর সরকারী কলেজ মোড়ে এলাকায় একটি মিছিল বের করলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হাসুয়া, চাপাতিসহ ধারলো অস্ত্র নিয়ে মিছিলে হামলা করে। তাদের হামলায় সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম, জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুল হক হেলাল, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান সরকার, পৌর বিএনপি নেতা সানুসহ ৮ নেতাকর্মী আহত হয়। আহতদের মধ্যে আব্দুল মান্নান সরকারকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অন্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এদিকে গতকাল বুধবার সকাল থেকে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা বিভিন্ন গ্রুপে বিভক্ত হয়ে দিনাজপুর শহরের প্রবেশপথ ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড, সইহারী কলেজ মোড়, কাঞ্চন ব্রীজ মোড়, পুলহাট মোড়, চিরিরবন্দর বটতলী মোড়সহ সব প্রবেশপথে অবস্থান নিয়ে খন্ড খন্ড মিছিল ও সমাবেশ করেছে। শহরের প্রবেশপথ ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ১৮ দলের জেলা পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ রেল লাইনের উপর বসে অবস্থান নিয়ে সমাবেশ করেছে। দিনাজপুর থেকে দু’একটি ট্রেন চলাচল করলেও বাস, ট্রাক চলাচল বন্ধ ছিল। শহরে অন্যান্য দিনের মত রিক্সা ও অটো রিক্সা চলাচল করেছে। অজানা আতঙ্কে বুধবারও শহরের অনেক দোকান-পাট বন্ধ ছিল।

অপর দিকে কোতয়ালী বিএনপির সভাপতি ও আস্করপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোঃ আবু বক্কর সিদ্দিক ও সাধারণ সম্পাদক ও পৌর সভার প্যানের মেয়র মুরাদ আহমেদ’র নেতৃত্বে এক বিশাল মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে ফুলবাড়ী বাসস্ট্যান্ড এলাকায় গিয়ে শেষ করে। পরে জেলা বিএনপিসহ ১৮ দলের অবস্থান কর্মসূচীতে অংশগ্রহন করে। এছাড়া জেলার বীরগঞ্জ, বিরিরবন্দর, পার্ততীপুর, ফুলবাড়ী, বিরামপুরসহ অন্যান্য উপজেলায় অবরোধ পালন করার খবর পাওয়া গেছে।

অবরোধের শেষ দিনে রেল স্টেশন

পার্বতীপুরে ১৮ দলের ডাকা ৪৮ ঘন্টা অবরোধের দ্বিতীয় দিন স্বর্তঃষ্ফুতভাবে পালিত হয়েছে। পার্বতীপুর রেলস্টেশনের ৩২টি ট্রেনের মধ্যে দু’একটি ছাড়া সব ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল।

সকাল থেকে রেলস্টেশন ছিল ট্রেন ও জনমানব শূন্য ভুতুড়ে নগরীতে। ৪ লাইনের রেলস্টেশনের চারদিক থেকে আসা অন্যান্য সব ট্রেন বিভিন্ন স্টেশনে আটকা পড়েছে। ফলে পার্বতীপুর জংশন স্টেশন ট্রেনহীন ও যাত্রী শূন্য হয়ে পড়ে। বুধবার পার্বতীপুর রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে পার্বতীপুর-ঢাকা, পার্বতীপুর-পঞ্চগড়, পার্বতীপুর-লালমনিরহাটও পার্বতীপুর-রাজশাহী-খুলনারুটে কোন ট্রেন ছেড়ে যায়নি। রেলস্টেন সূত্র জানায়, আদিতমারী, নশরতপুর, মহেন্দ্রনগর, চিরিরবন্দর, জয়পুহাটে, বেশ কয়েকটি ট্রেন আটকা পড়েছে।

এদিকে ৪ রুটে চলাচলকারী সড়কপথের কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনালও জনমানব শূন্য ছিল। সকাল ৯ টার দিকে ১৮ দলের নেতাকর্মীরা এক বিশাল মিছিল বের করে শহর প্রদক্ষিণ করে স্থানীয় বাসটার্মিনালে গিয়ে অবস্থান নেয়। সেখানে দিনব্যাপী সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মিছিলে নেতৃত্বে দেন পার্বতীপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য এজেডএম রেজওয়ানুল হক, বিএনপি নেতা আলহাজ্ব  অধ্যাপক জালাল উদ্দীন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email