সোমবার ২৩ মে ২০২২ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে পারিবারিক সহিংসতা বন্ধে সকলের সচেতন হওয়া প্রয়োজন

দিনাজপুর জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা সন্ধ্যা রাণী বাগচী বলেছেন প্রচার প্রসার এবং সচেনতার আলোকে আমাদেরকে পারিবারিক র্সুক্ষা আইন বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশে নারীরা মূলত স্বামী, শ্বশুড়-শাশুড়ী ও নিকট আত্মীয়দের দ্বারা পারিবারিক সহিংসতার শিকার হন।  নির্যাতনের কারণে তাদের শারীরক ও মানসিক বিপর্যয় ঘটে। অনেক ক্ষেত্রে মৃত্যুও ঘটে। তাই পারিবারিক সহিংসতা থেকে রক্ষা পাওযার জন্য দেশে সুরক্ষা আইন প্রনীত হয়েছে। এই আইন বাস্তবায়নে জিও-এনজিওদের সমন্বয় কাজ করতে হবে।
“পুরুষ-নারী সমাজ ও পরিবার পারিবারিক নির্যাতন প্রতিরোধে দুর্বার” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল বৃহস্পতিবার ঘাসিপাড়াস্থ এফপিএবি মিলনাযতনে এসইউপিকে ও প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ এর আয়োজনে প্রটেক্টিং হিউম্যান রাইটস্ (পিএইচআর) প্রোগ্রামের আওতায় পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) আইন ২০১০ বাস্তবায়নে আমাদের করনীয় শীর্ষক আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে  একথাগুলো বলেন। এসইউপিকে’র নির্বাহী পরিচালক মোঃ মোজাফফর হোসেন-এর সভাপতিত্বে স্বাগত বক্তব্য রাখেন আঞ্চলিক প্রোগ্রাম অফিসার প্ল্যান পিএইচ আর প্রকল্প মোঃ ইউসুফ আলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মহিলা আইনজীবী সমিতি ঢাকার ডেপুটি ডিরেক্টর এ্যাড. তহমিনা খাতুন ও প্ল্যান বাংলাদেশ পিএইচআর প্রকল্পের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ফারহানা আফরোজ। মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন এ্যাড. নিলুফার রহিম, এ্যাড. তৈয়বা বেগম, এ্যাড. গুলনাহার, চিরিরবন্দর উপজেলা মহিলা বিষয়ক অফিসার নিবেদিতা দাস, নবাবগঞ্জ মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রেবেকা সুলতানা, বীরগঞ্জ মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রিতা মন্ডল। বিরল মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুনা পারভীন, জেলা সমবায় অফিসার আবু বক্কর সিদ্দিক, অনন্যা সংস্থার নির্বাহী পরিচালক কানিজ ফাতেমা বেগম ও গ্রাম উন্নয়ন প্রচেষ্টার নির্বাহী পরিচালক ফরিদা বেগম।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email