বুধবার ১৭ অগাস্ট ২০২২ ২রা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে মেধাবী ছাত্রী প্রীতি জীবন দিয়ে স্প্রীড ব্রেকার ও ট্রাফিক ব্যবস্থার দাবী পুরন করে গেলো

সাহেব, দিনাজপুর : দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজের এইচএসসির একাদশের মেধাবী ছাত্রী প্রীতি লতা রায় জীবন দিয়ে স্প্রীড ব্রেকার ও ট্রাফিক ব্যবস্থার দাবী পুরন করে গেলো।

জানা গেছে, দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজ ও কলেজিয়েট স্কুল এন্ড কলেজে হাজার হাজার শিার্থী রয়েছে। স্কুল ও কলেজের সামনে দিয়ে রয়েছে দিনাজপুর-ঢাকা চলাচলের সড়ক। ব্যস্ততম এই সড়ক দিয়ে দিনাজপুর-ঢাকার কোচ, বাস, ট্রাক্টর, ট্রাক, অটোবাইকসহ বিভিন্ন যানবাহন চলাচল করে আসছে। দীর্ঘ দিন ধরে এ দুটি স্কুল ও কলেজে জীবনের ঝুকি নিয়ে তৃতীয় শ্রেনী থেকে অনার্স পর্যন্ত কয়েক হাজার মেয়ে প্রতিনিয়ত স্কুল ও কলেজে যাতায়াত করে। পাশেই রয়েছে কোচিং সেন্টার, ক্লিনিক ও ক্লাব। ব্যস্ততম এই সড়কটিতে স্প্রীড ব্রেকার ও ট্রাফিক ব্যবস্থার দাবী ছিল দীর্ঘদিনের। কিন্তু প্রশাসন ছাত্রী ও স্থানীয় জনগনের এ দাবী উপো করেছিল।

গত ১২ অক্টোবর ব্যাটারি চালিত অটো রিক্সার প্রচন্ড ধাক্কায় অঝোড়ে প্রান হারালো সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী প্রীতি লতা রায়। প্রীতি মৃত্যুর পর স্কুল, কলেজের শিার্থী ও স্থানীয় জনগনের দাবী স্প্রীড ব্রেকার নির্মান ও ট্রাফিক ব্যবস্থার আন্দোলন তীব্রতর হয়ে উঠে। আন্দোলনের মুখে পৌরসভা তাৎনিক ভাবে দুটি স্প্রীড ব্রেকার ও পুলিশ প্রশাসন স্বার্বনিক ট্রাফিক ব্যবস্থা করেছে। দিনাজপুর শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, দিনাজপুরের বৃহৎ একমাত্র সরকারী মহিলা কলেজ ও কলেজিয়েট স্কুল এন্ড কলেজ রয়েছে। ছাত্রীরা দীর্ঘদিন ধরে জীবনের ঝুকি নিয়ে স্কুল ও কলেজে যাতায়াত করত। এই স্প্রীড ব্রেকার ও ট্রাফিক ব্যবস্থার অনেক আগেই করা উচিত ছিল। এই দুর্ঘটনা ঘটার পর আমি জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপিকে অবগত করি। হুইপের নির্দেশে তাৎনিক ভাবে স্প্রীড ব্রেকার নির্মান ও ট্রাফিক ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email