সোমবার ২৩ মে ২০২২ ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে সংখ্যালঘুদের বাড়ী দোকানপাটে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ ঘটনায় মামলা

দিনাজপুর প্রতিনিধি : নির্বাচনে ভোট দিয়ে ফেরার পর হিন্দু সম্প্রদায়ের অর্ধশতাধিক বাড়ীতে হামলা, ভাংচুর ও অগ্নি সংযোগ করার ঘটনায় ১৫জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত ৫০০ জনের বিরম্নদ্ধে মামলা করেছে পুলিশ।

গত সোমবার দিবাগত রাতে ওই সব এলাকায় যৌথবাহিনী অভিযান চালিয়ে ৫জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় জেলা প্রশাসন ৩সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ওই গ্রামে একটি অস্থায়ী পুলিশ ক্যাম্পও বসানো হয়েছে।

অপরদিকে কর্নাই গ্রামের ঘটনার পর পাশের মহাদেবপুর গ্রামের সাহাপাড়া, বকরিপাড়া, গোবিনপুরসহ কয়েকটি এলাকায় আটকের ভয়ে পুরুষ শূন্য হয়ে পড়েছে। সোমবার দিবাগত রাতে এ সুযোগে বেশ কিছু মুসলিম বাড়ীতে হামলা ও ভাংচুর চালায় দূবৃত্তরা বলে ওই এলাকাবাসীরা জানায়। তবে হিন্দুরা নয় বলে তারা জানায়।

ক্ষতিগ্রস্থ আলম হোসেন সাংবাদিকদের জানান, সোমবার দিবাগত রাতে শতাধিক লোক আমার বাড়ীতে  হামলা করে  নগদ টাকা, টিভি, মোটর সাইকেল ভাংচুর ও স্বর্ণালংকারসহ অন্যান্য সামগ্রী লুট করে নিয়ে যায়। আমি বাড়ী না থাকায় আমার স্ত্রী কেউ  লাঞ্চিত করেছে।

এলাকার বর্তমান ইউপি সদস্য নাজির হোসেনের বাড়ীতে হামলা চালিয়ে তার ঘরের আসবাবপত্র ভাংচুর করে বলে তার স্ত্রী সাংবাদিকদের জানান।

এখন ওই দুই গ্রামের অবস্থা থমথমে। পুলিশী টহল জোরদার করা হয়েছে।

কোতয়ালী থানার ওসি আলতাফ হোসেন জানান, সংখ্যালুঘুদের বাড়ী-ঘরে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনায় পুলিশের উপপরিদর্শক আজিজুল হক বাদী হয়ে ৫০০জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। সোমবার দিবাগত রাতে ওই ঘটনাস্থলের আশপাশের এলাকায় দোষীদের আটক করতে যেীথবাহিনী অভিযান চালিয়ে ৫জনকে আটক করেছে।

আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যৌথবাহিনীর খবর পেয়ে কর্নাই কাটাপাড়া গ্রামের পার্শ্বে মহাদেবপুর গ্রামের অনেকেই নিজেরাই দরজা-জানালা ভেঙ্গে তাড়াহুড়া পালিয়ে যায়। তবে যৌথবাহিনী অভিযান শেষে চলে আসার পর অন্য কেউ এ সুযোগে মহাদেবপুর, সাহাপাড়া, বকরিপাড়া, গোবিনপুর, ডোমরতুলির কারো বাড়ীতে হামলা বা ভাংচুর চালাতে পারে। কিন্তু এ ব্যাপারে কেউ আমাদের কাছে কোন অভিযোগ করেনি।

উল্লেখ্য, রবিবার নির্বাচনের দিবাগত রাতে চেহেলগাজী ইউনিয়নের পিতামপাড়া, তেলিপাড়া, হাজীপাড়া, সাহাপাড়া ও বালুপাড়ার কিছু ঘরবাড়ী ও দোকানপাটে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ করে দূবৃত্তরা। ওইসব এলাকার হিন্দু পরিবারের ভোটাররা ভোট প্রদান শেষে বাড়ীতে ফিরে আসলে কর্নাই বাজারে হিন্দুদের অর্ধ শতাধিক বাড়ী, দোকান ভাংচুর করে ও অগ্নিসংযোগ করে। ঘটনার সোমবার সদর এমপি ইকবালুর রহিমসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ক্ষতিগ্রস্থদের মধ্যে কম্বল ও খাবার বিতন করা হয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email