বুধবার ১৭ এপ্রিল ২০২৪ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে সাংবাদিক লেখা মটর সাইকেলের ছড়াছড়ি।

বেলাল উদ্দিন,স্টাফ রিপোর্টারঃ দিনাজপুর শহরসহ প্রতিটি উপজেলায় সাংবাদিক ও প্রেস লেখা মটর সাইকেলের ছড়াছড়ি। ফলে প্রকৃত পেশাদার সাংবাদিকরা বিব্রতকর অবস্থায় পড়েছেন। এ ধরনের মটর সাইকেলের সংখ্যা দিন দিন আশংঙ্কাজনক ভাবে বৃদ্ধি পেলেও এ ব্যপারে প্রশাসনের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন না। এদিকে সরকার হারাচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকার রাজস্ব আয়।

কোনো মটর সাইকেলে এমন স্টিকার ব্যবহার করা হচ্ছে যে উলিস্নখিত সংবাদ পত্র বা টিভি এর কোনো আদৌ অস্থিত্ব নেই বা কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। এসব সাংবাদিকরা অনেক সময় প্রেস ক্লাবের পরিচয় দিয়ে থাকে, কিন্তু এরা সবাই প্রেস ক্লাবের সদস্য নয়। এরা মেয়াদ উত্তীর্ণ পরিচয়পত্র কিংবা ভূয়া পরিচয়পত্র বহন করে। এদের শহরে কেউ সাংবাদিক পরিচয়ে চেনে না। এ ধরনের মটর সাইকেল বেশির ভাগ ক্ষেত্রে চাঁদাবাজি, মাদক চোরাচালান ও প্রশাসনে নিজেদের প্রভাব ফেলে কাজ হাসিল করার কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে। এই মোটরসাইলগুলোর মধ্যে অনায়াসে চুরি করা মোটরসাইকেল কোন কোন ক্ষেত্রে ব্যবহার হয়ে থাকে।

মটর সাইকেল বিক্রেতা আলহাজ্ব শগীর আহমেদ বলেন, ‘‘২ লক্ষ টাকা দিয়ে যার মটর সাইকেল কেনার সামর্থ্য রয়েছে সে ১০/১৫ হাজার টাকা খরচ করে কাগজ পত্র তৈরি করবার ক্ষমতা নেই, এটা আমি বিশ্বাস করি না। এটা একটা অনৈতিক কাজ এবং রাজস্ব ফাঁকি দেওয়ার জন্য এই কাজটি করে থাকে। পুলিশ প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দেবার ও মামলা থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য অসাংবাদিকরা বেশিরভাগ সাংবাদিকের পরিচয় দিয়ে এ ধরনের স্টিকার ব্যবহার করে। এ ধরনের সাংবাদিকের কাছে থাকা পরিচয়পত্র গুলি পরীক্ষা করে ও তাতে লেখা কর্তৃপক্ষের নাম ঠিকানা ও মোবাইল নং নিয়ে কার্ড প্রদানকারী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাদের পরিচয় সঠিক কি না? এ বিষয়ে প্রশাসনকে নিশ্চিত হওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

Spread the love