সোমবার ৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে হারিয়ে যাচ্ছে শিমুল গাছ

Shimulদিনাজপুর জেলা থেকে দিনের পর দিন হারিয়ে যাচ্ছে প্রাকৃতিক ভাবে তুলা আহরনের একমাত্র অবলম্বন শিমুল গাছ। ১০-১১ বছর পূর্বে দিনাজপুর জেলার উপজেলা গুলোর বিভিন্ন অঞ্চলের অধিকাংশ বাড়ি-ঘরের আনাচে-কানাচে শিমুল গাছ দেখা যেত। বিশেষ করে ফাল্গুন মাসে শিমুল গাছের নয়নাভিরাম ফুল জানিয়ে দিতো কোন কোন স্থানে শিমুল গাছ আছে। শুধু তাই নয় গাছে গাছে প্রস্ফুটিত শিমুল ফুল বাঙ্গালিদের স্বরণ করিয়ে দিতো বসন্তেুর সব কথা। কিন্তু এখন দূড় দুড়ান্তেু তাকালেও কাঙ্খিত সেই শিমুল গাছের মেলা মুশকিল।
দিনাজপুর জেলার বিভিন্ন উপজেলায় খোজ নিয়ে জানা যায়, ব্যক্তিগত উদ্যোগে বন্ধ হয়ে গেছে শিমুল গাছ রোপন করা। যদিও গ্রাম-গঞ্জের আনাচে কানাচে প্রাকৃতিক ভাবে গড়ে উঠে সেটাও স্থানীয় এক শ্রেণীর কাঠ ব্যবসায়ীরা ক্রয় করছে ফার্নিচার তৈরি করার জন্য। শুধুই বাড়ির ফার্নিচার নয় ভাটার ইটের ফর্মা তৈরিতে, নির্মানাধীন ভবনের সহযোগী হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে শিমুল কাঠ। এভাবে অবাধে শিমুল গাছ কাটার কারনে জেলায় দিনের পর দিন হারিয়ে যাচ্ছে শিমুল গাছ। সাধারন মানুষ গুনগত মানের লেপ, বালিশ, তোশকসহ যাবতীয় তৈরিতে শিমুলের তুলা আর ব্যবহার করতে পারবেনা। শিমুল গাছ না থাকায় পরিবেশ হারিয়ে ফেলেছে তার প্রাকৃতিক ভারসাম্য। অতিদ্রুত সরকারি ভাবে শিমুল গাছ রোপন ও সংরোক্ষন করা প্রয়োজন বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন।