বৃহস্পতিবার ১৮ এপ্রিল ২০২৪ ৫ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে হিমাগারে কৃষকের পঁচে যাওয়া আলুর ক্ষতি পুরনের টাকা প্রদান

দিনাজপুর প্রতিনিধি : ২০১০ সালে দিনাজপুরের উত্তরা হিমাগারে সংরক্ষিত কৃষকের পঁচে যাওয়া আলুর আংশিক ক্ষতি পুরনের টাকা প্রদান।

 

বুধবার দুপুর ১২টায় দিনাজপুর প্রেসক্লাব কমপ্লেক্সে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রহমানের উপস্থিতিতে হিমাগার মালিক নওশাদ আফরোজ আনুষ্ঠানিক ভাবে এই টাকা প্রদান করেন।

 

এর আগে মালিক পক্ষের সাথে কৃষকদের একটি সমঝোতা চুক্তি হয়। যাতে হিমাগার মালিক নওশাদ আফরোজ ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদের কাছে দেউলিয়া হওয়ার কারন দেখিয়ে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা করে বস্তা প্রতি একশ টাকা হারে আংশিক ক্ষতিপুরন দেয়ার প্রস্তাব করেন। মালিক পক্ষের এই প্রস্তাব কৃষকরা কৃষকরা মেনে নেয়।

চেহেলগাজী কৃষক কল্যান সমিতি আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি আজিজুল ইসলাম জানান, আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারীর মধ্যে ক্ষতিপুরনের সমুদয় টাকা প্রদান করা হবে।

 

সংবাদ সম্মেলনে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষককে আলু সংরক্ষনের মুল প্রমানপত্র (জমা স্লিপ) নিয়ে দিনাজপুর শহরের মুন্সিপাড়াস্থ ‘‘রওশন টাওয়ার’’ এ (ঢাকা ব্যাংক সংলগ্ন) অথবা চেহেলগাজী কৃষক কল্যান সমিতি কার্যালয়ে যোগাযোগ করার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

 

প্রসঙ্গত, দিনাজপুরের উত্তরা হিমাগার কর্তৃপক্ষের দায়িত্বহীনতা ও গাফিলতির জন্য ২০১০ সালের এপ্রিলে ওই হিমাগারে সংরক্ষিত আনুমানিক ৩৫ হাজার বস্তা আলু পঁচে যায়। কর্তৃপক্ষের এহেন ভুমিকার প্রতিবাদে এবং ক্ষতিপুরনের দাবীতে সেসময় ক্ষতিগ্রস্থ আলু চাষীরা মিছিল-মিটিং মানব বন্ধন, সড়ক অবরোধ, হিমাগার ঘেরাও কর্মসুচী পালন করে।

 

Spread the love