শুক্রবার ২৭ মে ২০২২ ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুরে ১৮ দলের ডাকে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালিত

Dinajpur- BNP- 01-12-13---দিনাজপুর প্রতিনিধি: দিনাজপুরে স্থানীয় বিএনপির নেতৃত্বে  ১৮ দলের ডাকা  সকাল সন্ধ্যা হরতাল ও অবরোধে অচল  হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক কর্মকান্ড ।

হরতালের কারনে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর হিলি স্থল বন্দর স্থাবির হয়ে পড়েছে ।এমনিতেই অবরোধ তারপর স্থানীয় বিএনপিসহ ১৮ দলের ডাকা হরতাল ।সকাল থেকেই হিলি স্থল বন্দর দিয়ে কোন প্রকার পন্য উঠানামা করতে পারেনি ।

গতকাল রোববার সকাল থেকেই ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা  শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে হরতাল সর্মথনে হরতাল কারীরা বিক্ষোভ মিছিল করছে । সকালে  সদর হাসপাতাল মোড়ে ২টি মোটর সাইকেল ও ৫ টি অটো রিকশা পিকেটাররা ভাংচুর করেছে ।দিনাজপুর সদরের বানিজ্যিক এলাকা পুলহাটের মহা সড়কে রাস্তা বড় বড় গাছ কেটে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে । রাস্তায় টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে পিকেটিং করেছে বিএনপি জামায়াত শিবিরের নেতা কর্মীরা । এছাড়াও দশ মাইল , নবাবগঞ্জ রানীগঞ্জ চিরিরবন্দর মহা সড়কে কাঠের গুড়ি ,ইটপাটকেল, আগুন জ্বালিয়ে হরতাল সর্মথনে মিছিল করেছে হরতাল কারীরা । হরতালে যানচলা স্কুল কলেজ , ব্যাংক বীমা ,কলকারখানা অফিস আদালত এমনকি হালকা যানবাহনও বন্ধ ছিল ।

কেন্দ্রীয়  অবরোধ কর্মসুচী পালন কালে আওয়ামী লীগ নামধারী একদল সশন্ত্র সন্ত্রাসী পুলিশী ছত্রছায়ায় অতর্কিত হামলার প্রতিবাধে আজ রোববার দিনাজপুর জেলা বিএনপির নেতৃত্বে ১৮ দল সকাল-সন্ধ্যা হরতালেব ডাক দেয় ।

শনিবার হরতালের সমর্থনে বিএনপির নেতৃত্বে ১৮ দলীয় জোট জেলা বিএনপির  জেলা রোডস্থ  দলীয় কার্যালয় থেকে হরতাল সর্মথনে বিক্ষোভ মিছিল বের করেছে ।  জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ লুৎফর রহমান মিন্টুর নেতৃত্বে এক মিছিল বের করে শহরে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে ।

গত শুক্রবার সকালে জেল রোডস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুকুর চৌধুরী ১৮ দলের পক্ষে এই হরতালের ঘোষণা দেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে মুকুর চৌধুরী বলেন, ১৮ দলের দেশব্যাপী অবরোধ চলাকালে গত বুধবার দুপুরে দিনাজপুর সরকারী কলেজ মোড় এলাকায় জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম’র নেতৃত্বে ১৮ দল মিছিল বের করলে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা ওই মিছিলে হামলা করে। এতে সাবেক সাংসদ রেজিনা ইসলাম, পৌর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল মান্নান সরকারসহ ৮ নেতাকর্মী আহত হয়। এছাড়া অবরোধের শেষ দিন বৃহস্পতিবার একই এলাকায় ১৮ দলের শান্তিপূর্ণ সমাবেশ চলাকালে আওয়ামী লীগ যুবলীগ ছাত্রলীগের সন্ত্রাসীরা পুলিশের সহায়তায় শান্তিপূর্ণ সমাবেশে হামলা করে ও পুলিশ ১৮ দলের নেতাকর্মীদের উপর টিয়ার সেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে এতে অর্ধশতাধিক আহত হয়।তিনি আরোও অভিযোগ করেন  এছাড়া আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দিনাজপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব সোলায়মান মোল্লা, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মিজানুর রহমাস সাজু ও মামুনসহ কয়েকজন নেতার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, বাড়ী-ঘরে ভাংচুর ও লুটপাট করে। ভাংচুর ও লুটপাটে প্রায় ২৫ লাখ টাকা ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে দাবী করা হয়। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে ১৮ দল ১ ডিসেম্বর রোববার দিনাজপুর জেলায় সকাল-সন্ধ্যা হরতাল পালনের সিদ্ধান্ত নেয়।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সংবাদ সম্মেলনে আরো জানানো হয়, যে এ ব্যাপারে কোতয়ালী থানায়  মামলা করতে গেলে থানায় মামলা নেয়নি তিনি অভিযোগ করেন । তাই আদালতে মামলা করা হবে বলে জানান ।

সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ লুৎফর রহমান মিন্টু, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব রেজিনা ইসলাম, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মাহবুব আহমেদ, খালেকুজ্জামান বাবু, সাংগঠনিক সম্পাদক হাসানুজ্জামান উজ্জল, জেলা জামায়াতের কর্ম পরিষদ সদস্য ও সদর উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান মাওঃ মজিবুর রহমান, শহর জামায়াতের আমীর এ্যাড. মোঃ তৈয়ব আলী, জেলা জাগপার সভাপতি আলহাজ্ব রকিব উদ্দীন চৌধুরী মুন্না, জেলা ন্যাপ সভাপতি মঞ্জরুল আলমসহ ১৮ দলের অন্যান্য নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email