বুধবার ১৮ মে ২০২২ ৪ঠা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুর আত্রাই নদীর রাবার ড্যামের ছোয়ায় পাল্টে গেছে এলাকার জীবনযাত্রা

জিন্নাত হোসেন : দিনাজপুর শহর থেকে ১৮ কিলোমিটার পূর্বে দিনাজপুর-গোবিন্দগঞ্জ সড়কের সদর উপজেলার ৮নং শংস্করপুর ইউনিয়নের মোহনপুর আত্রাই নদীর উপর নির্মিত হয়েছে দেশের সর্ববৃহৎ রাবার ড্যাম। কৃষকদের সেচ সুবিধা নিশ্চিত করে কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধির মাধ্যমে খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করণের লক্ষে দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও বর্তমান জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এই রাবার ড্যাম নির্মান কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন ২০১১ সালের ১৯ ডিসেম্বর এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৩ সালের ২২ অক্টোবর এই রাবার ড্যাম এর শুভ উদ্বোধন করেন। দেশের সর্ববৃহৎ আত্রাই নদীর উপর রাবার ড্যামটি দিনাজপুরের দুই উপজেলার বাসীর জন্য আশির্বাদ বয়ে এনেছে। এ রাবার ড্যামের কারণে আধুনিক কৃষি প্রযুক্তি ছোয়া পাল্টে গেলে এলাকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ব্যবস্থা। মরুকরণের কবল থেকে রক্ষা পেয়েছে হাজার হাজার হেক্টর ফসলি জমি। কৃষক পাচ্ছে সেচ সুবিধা। উৎপাদিত হচ্ছে প্রায় ৭ হাজার মেট্রিকটন অতিরিক্ত খাদ্য শস্য। এছাড়াও মৎসজিবী পরিবারদের মিটছে মৌলিক চাহিদা। সৃষ্টি হয়েছে মাছ চাষের সু-ব্যবস্থা।

দিনাজপুর সদর আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় সংসদের মাননীয় হুইপ ইকবালুর রহিম জানান, কৃষি নির্ভর জনপদ দিনাজপুর। আমাদের অর্থনীতি কৃষির উপর নির্ভরশীল। এ এলাকার কৃষকরা গরীব ও প্রান্তিক চাষী। শুল্ক মৌসুমে পানির অভাবে এ অঞ্চলের কৃষকদের আবাদ করতে কষ্ট হত। আমার স্বপ্নছিল শুল্ক মৌসুমে আমাদের এ অঞ্চলের কৃষকরা যাতে সহজে আবাদ করতে পারে। সে লক্ষ নিয়েই বাংলাদেশের সর্ববৃহৎ রাবার ড্যাম আমরা দিনাজপুর সদর উপজেলার মহনপুরে আত্রাই নদীর উপর স্থাপন করেছি। এই রাবার ড্যামটি নির্মাণ হওয়ার ফলে এ অঞ্চলের হাজার হাজার হেক্টর জমিতে অতিরিক্ত ফসল আবাদ হবে প্রতি বছর। এবং এখান থেকে প্রায় ১০ হাজার কৃষক উপকৃত হবে। দেশের কৃষি অর্থনীতিতে এই রাবার ড্যামটি গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে বলে তিনি আশা ব্যক্ত করেন।

দিনাজপুর এলজিইডি’র নির্বাহী প্রকৌশলী খলিলুর রহমান বলেন, মোহনপুর আতরাই নদীর উপর রাবার ড্যাম থেকে সেচ সুবিধা নিতে কৃষকদের দিতে হচ্ছেনা কোন অতিরিক্ত খরচ। এতে কৃষকরা আর্থিকভাবে লাভোবান হচ্ছে। ১৩৫ মিটার দৈর্ঘ এই রাবার ড্যামটি দিনাজপুর সদর ও চিরিরবন্দর উপজেলাবাসীর জন্য আশির্বাদ বয়ে এনেছে।

দিনাজপুর মোহনপুর রাবার ড্যাম পানি ব্যবস্থাপনা সমবায় সমিতি লিঃ এর সভাপতি ও ৮নং শংকরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি শাহ জামাল সরকার এবং শংকরপুর ইউনিয়নের পার্বতীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইসাহাক চৌধুরী জানান, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে প্রায় ১৬ কোটি টাকা ব্যায়ে নির্মিত এই রাবার ড্যাম নির্মাণ কাজের তত্বাবধান করেছেন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর। তারা জানান, মোহনপুর আত্রাই নদীর উপর এই রাবার ড্যাম নির্মাণ হওয়ার ফলে সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়ন যথাক্রমে শংস্করপুর, শেখপুরা, ফাজিলপুর, শশরা, উথরাইল ইউনিয়ন এবং পার্শ্ববর্তী চিরিরবন্দর উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন যথাক্রমে সাইতারা, আব্দুলপুর, ভিয়াইল এবং আউলিয়া পুকুর ইউনিয়নের হাজার হাজার হেক্টর জমি সেচ সুবিধার আওতায় এসেছে। এতে উপকৃত হয়েছে ২ উপজেলার হাজার হাজার পরিবার। খরার মৌসুমে এই রাবার ড্যাম প্রকল্পের আওতায় সেচ সুবিধা বৃদ্ধির মাধ্যমে বছরে বোরো ধানের উৎপাদন প্রায় সাড়ে ৩ হাজার টন বৃদ্ধি পাবে। এতে বছরে প্রায় ৫ কোটি টাকা আর্থিকভাবে লাভোবান হবেন এই এলাকার কৃষকরা। এছাড়াও এই প্রকল্পের মাধ্যমে আত্রাই ও কাকড়া নদীর ৪৪ কিলোমিটার দীর্ঘ পানিতে মাছ চাষের সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে এই রাবার ড্যাম নির্মাণ হওয়ায় বেশী খুশি বোরো মৌসুমে সেচ নিয়ে বিড়ম্বনার শিকার এই এলাকার কৃষকরা। আনন্দে উদ্দেলিত হয়ে রাবার ড্যাম এলাকার কৃষরা জানান, বোরো মৌসুমে পানির স্তর নিচে নেমে যাওয়ায় বোরো আবাদ নিয়ে তারা মারাক্তক দূশ্চিন্তায় থাকতো। এর আগে এ অঞ্চলের কৃষকদের দেড় থেকে দুশ ফিট গর্ত করে পাম্পের সাহায্যে কোন রকমভাবে জামিতে পানি দিতে হত। রাবার ড্যাম নির্মাণ হওয়ায় বোরো আবাদের সেচ নিয়ে আর তাদের ভাবতে হবে না। দেশের সর্ববৃহৎ এই রাবার ড্যাম নির্মাণ করায় এলাকার কৃষক ফয়জুর রহমান, ইউসুফ আলী, ইব্রাহীম, এনামুল হক, আব্দুল আজিম, লুৎফর রহমান মন্ডলসহ হাজার হাজার কৃষক বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপিকে ধন্যবাদ জানান এবং তাদের দীর্ঘায়ু কামনা করেন।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email