শুক্রবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১০ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুর পৌর শহরে ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ায় সীমাহিন দুর্ভোগে পৌর বাসী৷

সুবল রায়, দিনাজপুর : দিনাজপুর পৌর সভার ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ায় সিমাহীন দুর্ভোগ পহাচ্ছেন পৌর বাসী৷ দোঁড় গোরায় বর্ষা মৌসুম থাকলেও ড্রেনেজ ব্যবস্থা সংস্কারের কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি পৌর সভার কর্তৃপক্ষ৷ তাই পৌর বাসী আবোরো জল বদ্ধতার আসঙ্খায় ভুগছেন৷ পৌর শহরে ড্রেন গুলি নিয়মত পরিস্কার হচ্ছেনা ফলে ড্রেন গুলি ভরাট হয়ে নংরা জল উপচে পড়ছে রাস্তার উপর ও ঢুকছে জনগনের বাড়ীর আঙ্গীনায়৷

দিনাজপুর পৌর সভা প্রতিষ্ঠিত হয় আজ থেকে প্রায় ১শত ২৫ বছর পুর্বে৷ এই পৌর সভার লোক সংখ্যা প্রায় ২লক্ষ৷ ১৯৮০ সাল পর্যন্ত জনগন পুরা মাত্রায় পৌর সেবা পেয়েছেন৷ কিন্ত এর পর থেকে পৌর সভার সেবার মান কমতে কমতে শুন্যের কোঠায় নেমে এসেছে৷ পৌর সভার কোন ড্রেন নিয়মিত পরিস্কার হয়না৷ ডাষ্ট বিন গুলো মাসে একবারেও পরিস্কার করা হযনা৷ রাস্তা গুলি ভাঙ্গা চুরা৷ সব মিলে পৌর বাসীর ভোগান্তি দিন দিন বেরেই চলছে৷ পৌর সভায় রয়েছে ৭০-৮০ বছরের পুরাতন ড্রেন৷ যে গুলি মাটিতে ভরাট হয়ে গেছে৷ এই গুলো ড্রেনের অবকাঠামো ঠিক থাকলেও সংস্কারের কোন ব্যবস্থা গ্রহন করছেননা পৌর কর্তৃপক্ষ৷ তারা সংস্কার না করে লক্ষ লক্ষ টাকা খরছ করে নতুন ড্রেন তৈরী করছে যা জন গনের উপকারে আসছেনা৷ বর্তমানে ড্রেনগুলি নিয়মিত পরিস্কার না হওয়ার কারণে পৌর বাসীর ভোগান্তির সীমা নাই৷ পৌর বাসী নিয়মিত খাজনা, ট্যাক্স পরিশোাধ করার পরেও পৌর সভার নিকট থেকে কোন সেবা পাচ্ছেননা এই অভিযোগ এলাকা বাসীর৷ দিনাজপুর শহরের জেলখানার সামনে একটু বৃষ্টিতেই হাটু জল জমে৷ এই অবস্থা রামনগর মোড়, পাটুয়া পাড়া ঈদগাঁ মোড়, বালুবাড়ী, ফকিরপাড়া, শেকপুরা সহ শহরের বিভিন্ন স্থানে একই অবস্থা দেখা দেয়৷ ৬ ফুট গভীর ড্রেন এখন ভরাট হয়ে ২ ফুটে দাড়িয়েছে৷ ড্রেনের বুকে জন্ম নিয়েছে আগাছা ও কচুবন৷ পৌর কর্তৃপক্ষের অবহেলা আর উদাসিনতার কারণে ভোগন্তি পোহাতে হচ্ছে পৌর বাসীদের৷ চলতি মাসে পৌর সভার ড্রেন সংস্কারের জন্য ১২ কোটি ৩০ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করেছে কিন্তু এ টাকা প্রতিটি ওয়ার্ডে সমবন্টন হচ্ছেনা এমন অভিযোগ উঠেছে৷

দিনাজপুর পৌর সভাকে পুর্বের ঐতিয্যে ফিরে আনতে সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহন করবে সরকার৷ এমনটি আসা করেন দিনাজপুর পৌর এলাকার বাসীরা৷

 

Spread the love