রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে নবীন বরণ অনুষ্ঠানে হুইপ ইকবালুর রহিম

জিন্নাত হোসেন : জাতীয় সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম এমপি একটি সুন্দর বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষার্থীদেরকে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, সুষ্ঠু ও সুস্থ্য রাজনীতির জন্য দরকার শিক্ষিত, সৎ ও নিষ্ঠাবান রাজনীতিবিদের। তাই তিনি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার পাশাপাশি ভালো-মন্দ বিচার করে সুস্থ্য রাজনীতি চর্চা করার আহবান জানান।

 

হুইপ ইকবালুর রহিম সোমবার দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজে ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহবান জানান।

 

তিনি বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে অসুস্থ্য রাজনীতির চর্চা করছে ২০ দলীয় জোট। আর এর কারন হচ্ছে নেতৃত্বে শিক্ষার অভাব। ২০ দলীয় জোট নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া নিজে অশিক্ষিত বলেই তিনি একমাস ধরে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করার চেষ্ঠা অব্যাহত রেখেছে। সারাদেশের গত একমাসে পেট্রোল বোমা মেরে ৫৫ জন মানুষ অগ্নিদ্বগ্ধ হতে নিহত এবং অসংখ্য মানুষ অগ্নিদ্বগ্ধ হওয়ার করুন চিত্র বর্ণনা করে হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, রাজনীতিতে একজন অশিক্ষিত মানুষ নেতৃত্ব দিলেই দেশে জ্বালাও পোড়াও সহ মানুষ পোড়ানোর এই বিভৎস রাজনীতি করা সম্ভব।

 

ইকবালুর রহিম বলেন, শুধু মানুষ পোড়ানোর রাজনীতিই নয়, খালেদা জিয়া নিজেই অশিক্ষিত বলেই পরীক্ষার সময় হরতাল দিয়ে এদেশের শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া ধ্বংশ করতে চায়। তিনি বলেণ, যে মানুষ নিজেদের সন্তানদের লেখাপড়ার কথা কখনও ভাবেনি, যার ফলে খালেদা জিয়ার দুই পুত্র লেখাপড়া করতে পারেনি। সেই নেত্রী কিভাবে সারাদেশের শিশুদের লেখাপড়ার কথা চিন্তা করবে ?

 

হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেও শিক্ষিত এবং তার দুই সন্তানকেও উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত করেছেন। তাই তিনি চান, দেশের প্রতিটি শিশু যাতে প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে পারে। এ জন্য তিনি শিক্ষাকে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বিনামুল্যে বই বিতরন, ২ কোটি ছাত্রীকে উপবৃত্তি প্রদানসহ শিক্ষাক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের উন্নয়নের কথা উলে­খ করেন। এছাড়াও দেশের প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হচ্ছে।

 

তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্রমুক্ত, সমৃদ্ধ ও আত্মমর্যাদাপুর্ণ বাংলাদেশ গড়তে চায়। আর সরকারের এই লক্ষ্য অর্জনে আগামী প্রজন্মকে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভর ও প্রকৃত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। তিনি বলেন বিশ্বায়নের এই যুগে শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তি কারিগর হিসেবে দেখতে চাই। এ জন্য তিনি আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিকে শিক্ষার কাজে ব্যবহার করার আহবান জানান।

 

অনুষ্ঠানে তিনি দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজের ক্যান্টিন নির্মান, অডিটরিয়ামের উন্নয়নসহ বিভিন্ন উন্নয়ন পদক্ষেপের কথা ঘোষনা করেন।

Mohila Colage-01দিনাজপুর সরকারী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর আঞ্জুমান আখতারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দিনাজপুরের জেলা প্রশাসক আহমেদ শামীম আল রাজী ও পুলিশ সুপার রুহুল আমীন। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর সৈয়দ আহাম্মদ হোসেন, ছাত্রীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী সংসদের ভিপি ডেইজী রায় এবং নবীনদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন, ঝর্না আখতার। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, কলেজের শিক্ষক প্রফেসর সামশুল আলম এবং নবীনদের উদ্দেশ্যে মানপত্র পাঠ করেন সমাজকর্ম বিভাগের ছাত্রী আয়েশা সিদ্দিকা।

এর আগে হুইপ ইকবালুর রহিম দিনাজপুর সরকারী কলেজের নবনির্মিত প্রধান ফটকের উদ্বোধন করেন।

Spread the love