বুধবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ধারাবাহিক পরাজয় দেশকে লজ্জায় ডুবালো টাইগাররা।

Criketধারাবাহিক পরাজয় দেশকে লজ্জায় ডুবালো টাইগাররা। তারা শ্রীলংকার কাছে প্রথমে ১-০তে টেস্ট, তারপর ২-০তে টি২০ আর সর্ব শেষ আজ ৩-০তে ওয়ানডে সিরিজ হেরে টানা ৩টি সিরিজেই চরমভাবে হেরে হতাশ করেছে বাংলাদেশের ক্রিকেট প্রেমীদের । ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের শেষটিতে আজ শনিবার শ্রীলংকার কারে ৬ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারলো বাংলাদেশ। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেট হারিয়ে স্বাগতিকরা করে ২৪০ রান। এর জবাবে কৌশল পেরেরার অনবদ্য প্রথম শতকের সুবাদে ২.৩ ওভার বাকি থাকতেই এ রান টপকে যায় শ্রীলঙ্কা। ২ বছর পর ওয়ানডে সিরিজের সবগুলো ম্যাচ হারলো বাংলাদেশ।
একবার করে জীবন পাওয়া লাহিরু থিরিমান্নে (১৮) ও কিথুরুয়ান ভিথানাগেকে (৯) দ্রুত ফিরিয়ে বাংলাদেশকে ভালো সূচনা এনে দিয়েছিলেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। কিন্তু তৃতীয় উইকেটে দীনেশ চান্দিমালের সঙ্গে কৌশলের ১৩৮ রানের বড় জুটি শ্রীলঙ্কাকে সহজ জয়ের ভিত গড়ে দেয়। এ জুটি গড়ার পথেও ভাগ্যের সহায়তা পেয়েছেন দুই ব্যাটসম্যান। ব্যক্তিগত ৫১ রানে রুবেল হোসেনের বল কৌশলের ব্যাটে লেগে এনামুলের গ্লাভসে জমা পড়লেও আম্পায়ারের বিতর্কিত সিদ্ধান্তে বেঁচে যান তিনি। রুবেলের পরের ওভারে ২৮ রানে ব্যাট করা চান্দিমালের ক্যাচটি গ্লাভসবন্দী করতে পারেননি এনামুল হক।
শতরানের জুটি ভাঙ্গার কৃতিত্ব রুবেলেরই। কৌশলকে বোল্ড করে ২৩ ওভার ১ বল স্থায়ী জুটি ভাঙ্গেন তিনি। ১০৬ রান করা কৌশলের ১২৪ বলের ইনিংসটি সাজানো ৬টি চার ও ৫টি ছক্কায়। পরের ওভারে চান্দিমালকেও ফেরান এই ডানহাতি পেসার। ৬৪ রান করা চান্দিমালের ৭০ বলের ইনিংসে ছিল ৪টি চার। অবশ্য ইনিংসের শুরুটা ভালো হয়নি স্বাগতিকদের। ষষ্ঠ ওভারে ধাম্মিকা প্রসাদের বলে খোঁচা মেরে উইকেটরক্ষক দীনেশ চান্দিমালের হাতে ধরা পড়েন এনামুল হক (২)। তবে শামসুর রহমানের সঙ্গে ৪৫ ও অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমের সঙ্গে ৪৬ রানের দুটি জুটি গড়ে দলকে ২ উইকেটে ১০৮ রানের স্বস্তিকর জায়গায় পৌঁছে দিয়েছিলেন মুমিনুল হক।
ধাম্মিকার বলে পুল করেছিলেন শামসুর (২৫)। কিন্তু টাইমিং ঠিক না হওয়ায় ডিপ স্কয়ারলেগে এঞ্জেলো পেরেরার হাতে ধরা পড়েন তিনি। অর্ধশতকে পৌঁছানোর পর দুই রান নিতে গিয়ে কিথুরুয়ান ভিথানাগের সরাসরি থ্রোয়ে মুমিনুল রান-আউট হয়ে গেলে বড় একটা ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। ৬০ বলে ৬০ রান করা মুমিনুলের ইনিংসে ছিল ৮টি চার। উইকেটে সেট হয়ে বাজে বলে পয়েন্টে ক্যাচ দিয়ে ফিরেছেন মুশফিক। ৩০ রান করা মুশফিক ধাম্মিকার তৃতীয় শিকার।
অশোভন আচরণের দায়ে তিন ম্যাচের জন্য নিষিদ্ধ সাকিব আল হাসানের বদলে দলে ফেরা নাঈম ইসলামের সঙ্গে ৫৪ রানের জুটি গড়ে দলকে ৪ উইকেটে ১৮৪ রানে পৌঁছে দিয়েছিলেন নাসির হোসেন। শুরুতে স্বচ্ছন্দ্য থাকলেও শেষের দিকে অতিথি বোলারদের আঁটোসাটো বোলিংয়ে রানের জন্য রীতিমত লড়াই করতে হয়েছে নাঈম-নাসিরকে। ব্যাটিং পাওয়ার প্লের ৫ ওভারে মাত্র ২৩ রান যোগ করেন এ দু’জনে। ৪০ তম ওভারের শেষ বলে নাঈমকেও (৩২) হারায় বাংলাদেশ।
রানের গতি বাড়াতে গিয়ে ৪৫তম ওভারে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও নাসির হোসেনের বিদায়ে আর বড় সংগ্রহ গড়তে পারেনি বাংলাদেশ। সুরঙ্গা লাকমলের বলে লংঅনে ক্যাচ দেন মাহমুদুল্লাহ (৫)। নাসির (৩৮) ধরা পড়েন মিডউইকেটে। সেখান থেকে স্বাগতিকদের সংগ্রহ আড়াইশর কাছাকাছি নেয়ার কৃতিত্ব সোহাগ গাজীর। থিসারা পেরেরার করা ৪৯তম ওভারের পঞ্চম বলে বোল্ড হওয়ার আগে ১৩ বলে তিনটি ছক্কার সাহায্যে ২৩ রান করেন তিনি। ৪৯ রানে ৩ উইকেট নিয়ে শ্রীলঙ্কার সেরা বোলার ধাম্মিকা।
ক্যারিয়ারের অনবদ্য প্রথম শতকের সুবাদে কৌশল পেরেরা (শ্রীলংকা) ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছেন। আর ম্যান অব দ্যা সিরিজ হয়েছেন শ্রীলঙ্কান বোলার সচিত্র সেনানায়েকে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email