শনিবার ২ মার্চ ২০২৪ ১৮ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

নির্যাতন ও অত্যাচারের অভিযোগে সংবাদ সম্মেলনে

দিনাজপুর প্রতিনিধি : আদালতের পেশকার ও স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ফার্মাষ্টিটের চাকুরী জীবি হওয়ার সরকারী প্রভাব খাটিয়ে গ্রামের নিরীহ সাধারন মানুষের জমিজমা দখলসহ প্রতিনিয়য়ত মানবাধিকার লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটাচ্ছে নব্য প্রভাবশালী নাসির উদ্দীন ও তার ছোট ভাই নুর আলম। ওই দুই ভাইয়ের নির্মম নির্যাতন ও অত্যাচারের শিকার এন্তাজ আলী সংবাদ সম্মেলন করে প্রশাসনের নিকট ন্যায় বিচার ও জানমালের নিরাপত্তা দাবী করেছেন।

 

সোমবার সকালে দিনাজপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে নবাবগঞ্জ উপজেলার গুনবিহার গ্রামের মৃত হেফাজউদ্দীনের পুত্র এন্তাজ আলী এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

 

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে এমত্মাজ আলী সাংবাদিকদের বলেন, আমার চাচাত ভাই নাসির উদ্দীন ১ম শ্রেনীর জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বিচার আদালত(৫) এর পেশকার ও নুর আলম দাউদপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স’র ফার্মাসিষ্ট পদের প্রভাব খাটিয়ে গ্রামের সাধারন মানুষকে অত্যাচার নির্যাতন করে জায়গা-জমি পুকুর-ডোবা দখল করে নিচ্ছে।

 

তারা ক্ষমতার প্রভাব খাটিয়ে তাদেও বাড়ির এবং জমি সংলগ্ন অন্য মানুষের জমি বিক্রি করতে বাধ্য করে নইলে সন্ত্রাসীদের দ্বারা শক্তি প্রয়োগ করে উচ্ছেদের মাধ্যমে সাধোরন মানুষের জমি জোবর দখল নেয়ে। গত ১১/৩/১৫ তারিখে গ্রামের আকরাম হোসেনের গুনবিহার মৌজার ২৬৬ নং দাগের একটি পুকুরের হামলা কওে ৬০/৭০ হাজার টাকার ক্ষতিসাধন করেছে। এব্যাপারে তাদের বিরম্নদ্ধে নবাবগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে যার নং ০৮/১৫ তাং১২/৩/১৫ জিআর নং ৩৯/১৫।

 

তিনি আরো জানান,মানুষের পাশাপাশি আমরা দরিদ্র নিকট আত্বীয় হওয়ায় সে আমাদেও পৈত্রিক বাস্ত্তভিটা তাহাদের কাছে বিক্রয় করার জন্যে চাপ সৃষ্টি করছে এবং উচ্ছেদের জন্যে নানান নির্যাতন শুরু করেছে। আমরা জমি তাদের দিতে অস্বীকার করায় ১২ মার্চ সকালে বড় ভাই তোফাজ্জল হোসেনকে অমানবিকভাবে মারধোর করে তারা হাত-পা ভেঙ্গে দিয়েছে বর্তমানে সে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। এব্যাপারেও আমি নবাবগঞ্জ থানায় মামলা করেছি যার নং ০৭ তাং ১২/৩/১৫ ঝিআর নং ৩৮/১৫।

মামলা করার কারনে আমাদেও উপর নেমে এসেছে ভয়ানক অত্যাচার। পেশকার নাসির ও নুর আলম আমাদের হুমকী দিয়েছে জিআর নং ৩৮/১৫ মামলাটি তুলে না নিলে আমাদের কে হত্যা করে লাশগুম করবে। তাদের হুমকীর কারনে আমরা নিজের বাড়িতেও যেতে পারছিনা। আমরা বর্তমানে যেখানে সেখানে আত্বীয়দেও বাড়িতে লুকিয়ে বেড়াচ্ছি।

 

সংবাদ সম্মেলনে এন্তাজ আলী তার ও তার পরিবারের সদস্যগনের জানমালের নিরাপত্তা এবং এহেন অপরাধীদের কঠোর শাস্তি প্রদানের জণ্যে প্রশাসনের প্রতি দাবী করেছে।

Spread the love