শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পঞ্চগড়ে একটি ভুমিদস্যূ চক্রের দৌড়াত্বে কয়েকটি পরিবার দিশেহারা

মো: এনামুল হক পঞ্চগড় থেকে: পঞ্চগড় সদর উপজেলায় একটি ভুমিদস্যূ চক্রের বেপরোয়া কর্মকান্ডে দিশেহারা হয়ে পড়েছে জেলা প্রশাসকের এক কর্মচারীসহ কয়েকটি পরিবার। এই চক্রটির একের পর এক আবাদি জমি দখল, মিথ্যা মামলাসহ বিভিন্ন হুমকি-ধমকিতে ঐ পরিবারগুলো থানা পুলিশসহ সমাজপতিদের দাড়ে দাড়ে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।

জানা গেছে, পঞ্চগড় সদর ইউনিয়নের মোলানিপাড়া গ্রামে স্থানীয় কবরস্থান সংলগ্ন পৈত্তিক ও ক্রয়কৃত জমিতে দীর্ঘদিন ধরে চাষাবাদ করে আসছেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ৪র্থশ্রেণীর কর্মচারী মো: বাবুল হোসেন। কিছুদিন পূর্বে স্থানীয় ভ্যানচালক মো: বৈসাগুকে প্রভাবিত করে বাবুল হোসেনের জমিতে ঘর তুলতে সহায়তা করে ভুমিদস্যূ চক্রটি। এ নিয়ে উভয় পক্ষ পঞ্চগড় সদর থানায় একাধিকবার বসা হলে ভুমিদস্যু চক্রটি কোন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

বাবুল হোসেন জানায়, থানায় আলোচনার একপর্যায়ে ঐ ভুমিদস্যূ চক্রের হোতা মো: লিটন, মোবারক (বাবুর্চি), অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য মো: লতিফ একত্রিত হয়ে ৫,০০০০০ (পাঁচ লক্ষ) টাকা দাবি করে বলে, এই টাকা দিলে জমি দখল করতে যাবোনা, মামলাও থাকবে না। এছাড়াও ঐ ভুমিদস্যূ চক্রটি মো: আইবুল হকের ২৩শতক জমি দখল করার পায়তারা করছে। ভুমিদস্যূদের হুমকি-ধমকি ও একের পর এক জমি অবৈধভাবে দখল করায় স্ত্রী সন্তান নিয়ে চরম অনিশ্চয়তায় দিনযাপন করছে পরিবারগুলো। চক্রটির বেপরোয়া কর্মকান্ডে সন্তনদের স্কুলে পাঠাতে ভয় পাচ্ছেন ভুক্তভোগী পরিবারগুলো।

 

এ ব্যাপারে সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল) কাজী আকতার উল আলম বলেন, জমি সংক্রামত্ম বিষয়গুলি আমরা সরাসরি কিছু করতে পারিনা। ভুমিদস্যূদের বিরুদ্ধে থানায় লিখিত অভিযোগের পরামর্শ দেন তিনি।

Spread the love