শনিবার ২০ এপ্রিল ২০২৪ ৭ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পঞ্চগড়ে কাবিখা-টিআর নিয়ে হরিলুটের অভিযোগ

মো. এনামুল হক , পঞ্চগড় প্রতিনিধি : কেউ মানছেনা কাবিখা-টিআর কাজের নিয়ম কানুন যে যার মতো করে কাজ করছে৷ এবারে প্রথম পর্যায়ে এ কাজের অর্ধেক বরাদ্দে সোলার প্যানেল ধরা থাকলে মাটির কাজ নিয়ে নানা প্রশান তৈরী হয়েছে৷ দেবীগঞ্জে সরজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, েচংঠি হাজরা ডাঙ্গা ইউনিয়নের কাউয়াপুকুর রাস্তায় ডিজাউন অনুযায়ী মটি ভরাটের কথা থাকলে সেখানে নামমাত্র (২ইঞ্চির মতো) মাটৈদেয়া হয়েছে৷ওই এলাকার একজন মসজিদ কমিটির সদস্য জানান, েদখেন ভাই এটা কোন কাজ হলো৷ এখনও ঘাস দেখা যাচ্ছে৷ জানা গেছে, বিশেষ বরাদ্দের আওতায় ৮মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে৷এদিকে পামুলী ইউনিয়নের কাজীকামাত হতে- বানুর হাট মন্দির হয়ে প্রধানের বাড়ী রাস্তায় মাটি ভরাটের কাজে একই অবস্থা৷এদিকে বোদা উপজেলার মাড়েয়া ও বড়শশী ইউনিয়নে কাবিখা-টিআর প্রকল্প বাস্তবায়নে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে৷ বড়শশী ইউনিয়নের স্থানীয় আওয়ামীলীগের একজন প্রভাবশালী নেতা জানান, টিআর এরকোন কাজই হয়নি৷ আপনারা সরজমিনে তদন্ত করুন৷অপরদিকেেতঁতুলিয়া উপজেলার তিরনইহাট – বুড়াবুড়ি ও বাংলাবান্ধা ইউনিয়নের কাবিখা কাজে অভিযোগ উঠেছে৷সোলার প্যানেল স্থাপনে নিয়ম অনুযায়ী ৪০ পাওয়ার থাকলেও অনেকে তা মানছেন ৷এ ব্যাপরে পি,আইওমো. ওয়ালিফ জানান,কমপক্ষে ৩০ পাওয়ারের সোলার আমার লাগবে৷এদিকেবোদা উপজেলা বড়শশী ও মাড়েয়া ইউনিয়নের কাবিখা-টিআর প্রকল্পে ব্যাপব অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে৷ বড়শশী ইউনিয়নের একজন আওয়ামীলীগের প্রভাবশালীনেতা জানান, িটআর প্রকল্পেকোন কাজই হয়নি৷ এগুলি আপনারা দেখেন৷এদিকে আটোয়ারী উপজেলার পি আইওর বিরুদ্ধে ব্যাপক অভিযোগ উঠেছে৷ তিনি কাজ ফাঁকি দিয়ে প্রকল্প কমিটির নিকট হতে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছেন৷স্থানীয় সচেতন সমাজ তাকে বদলীর দাবী করেছেন৷অনেকে জানান, তিনি একজন লেবাসধারী সরকারী কর্মচারী৷সূত্র জানায়, তিনি ৭ লাখ টাকা দিয়ে এপদে চাকুরী নিয়েছেন৷তাই তিনি কাজের প্রতৈকোন গুরত্বদেন না৷ তাই তিনি টাকা কামাতে ব্যস্ত৷ এ জন্য আটোয়ারী পিআইও মো. জুলফিকার আলীর বদলীর দাবী করেছেন স্থানীরা৷ অপরদিকে দূযোর্গ ব্যবস্থাপনাও ত্রান দপ্তরের ব্রীজ নির্মান নিয়ে পিআইওরা ব্যস্ত থাকায় কাবিখা-টিআর কাজের মানে ভাটা পড়েছে৷

Spread the love