বুধবার ২৮ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১৫ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পঞ্চগড়ে ২০১৬-২০১৭ মৌসুমের ইক্ষু রোপন উদ্বোধন আখ চাষীদের দুর্দিন শেষ, চেয়ারম্যান,বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশন

পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ ২০১৬-২০১৭ মৌসুমের ইক্ষুরোপন শুরু হয়েছে। গতকাল বিকেলে পঞ্চগড় তেঁতুলিয়া উপজেলার কাজিপাড়ায় আনুষ্ঠানিকভাবে ইক্ষু রোপন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন বাংলাদেশ চিনি ও খাদ্য শিল্প কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান একে এম দেলোয়ার হোসেন এফসিএমএ। পঞ্চগড় সুপার মিলের ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত ইক্ষু রোপন অনুষ্ঠানে তিনি বলেন আখচাষীদের দুর্দিন আর থাকবেনা। কারন বাংলাদেশের চিনিকল গুলিকে আবার নতুন করে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নিয়েছে বর্তমান সরকার। নতুন নতুন প্রযুক্তি এবং অবকাঠামো নির্মাণের পরিকল্পনা গ্রহন করা হয়েছে। এখন থেকে আখ চাষীদের আর পূর্জি বা আখের মূল্যের  জন্য দিনের পর দিন অপেক্ষা করতে হবেনা। কারন সরকার ই-পূর্জি এবং ই-ক্যাশের ব্যবস্থা করেছে । আখ মাড়াই শুরম্নর আগেই আখ চাষীদের মোবাইলে ম্যাসেজের মাধ্যমে পূর্জির ব্যবস্থা করা হবে।কোন চাষী কত তারিখে ইক্ষু কেন্দ্রে নিয়ে আসবেন তারিখ সহ জানিয়ে দেয়া হবে। ইক্ষু ক্রয় কেন্দ্রে ডিজিটাল ওজন মেশিন বসানোর উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। ইক্ষু কেন্দ্রে ইক্ষু নিয়ে আসার কয়েক ঘন্টার মধ্যে ব্যাংকে মূল্য পরিশোধ করা হবে। আখ চাষীরা ম্যাসেজের মাধ্যমেসে সংবাদও পাবেন। তিনি আরও বলেন ইক্ষু গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা নতুন নতুন আবিস্কারের পেছনে ছুটছেন। আগাছা মারার ওষুধ আবিস্কারের খুব কাছাকাছি আমরা পৌছে গেছি। খুব শিঘ্রই এই সুসংবাদ পাবেন। ভূর্তুকি এবং আখের দামও বাড়ানো হবে। একটু সময়ের দরকার মাত্র। এ ছাড়া আখ চাষীদের কে প্রশিক্ষনদেয়া হবে বলেও জানান তিনি । এসময় বাংলাদেশ আখ চাষী সমিতির কেন্দ্রীয় সহসভাপতি কাজী মাহমুদুর রহমান ডাব্লু,পঞ্চগড় চিনিকলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এমদাদুল হক, তেঁতুলিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, পঞ্চগড় চিনিকল শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি আনোয়ারুল হক , বাংলাদেশের শ্রেষ্ঠ আখচাষী কাজী মিজানুর রহমান সহ জেলার আখচাষীরা উপস্থিত ছিলেন।  পঞ্চগড় চিনিকল সুত্রে জানা গেছে ২০১৬-২০১৭ মৌসুমে  জেলায়  ১ লক্ষ ২০ হাজার মেট্রিক টন ইক্ষু উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছে ।

Spread the love