সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপরে জমি নিয়ে সংর্ঘষের ঘটনায় ৭৪ জনসহ অজ্ঞাত ৩ হাজার আসামী করে মামলা

একরামুল হক বেলাল,পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধি : পার্বতীপুরে জমির মালিকানা নিয়ে দ’ুপক্ষের সংঘর্ষে তীর বিদ্ধ হয়ে এক যুবক নিহতসহ প্রায় ১৫ জন আহত হয়। বিক্ষুদ্ধ এলাকাবাসী আদিবাসী পল্লীতে অগ্নিসংযোগ ও লুটপাট করে। পুলিশ লুটপাট হওয়া প্রায় মালামালাই উদ্ধার করেছে। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক তৌহিদুল ইসলামকে আহবায়ক করে তিন সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে।

আজ বুধবার রাতে আদিবাসী ৭৪ জনসহ ৩ হাজার অজ্ঞাতনামা আসামী করে পার্বতীপুর মডেল থানায় মামলা হয়েছে।

জানা যায়, পার্বতীপুর উপজেলার মোস্তফাপুর ইউনিয়নের বড়দল সরকার পাড়া গ্রামের গত ২৪ জানুয়ারী শনিবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে জহুরুল হক তার পুত্র শাফিউল ইসলাম সোহাগকে সাথে নিয়ে বোরো চাষের জমি তৈরীর জন্য মাঠে যায়। জমিতে পানি সেচের সময় উক্ত জমির দাবীদার হাবিতপুর চিড়াকুঠা গ্রামে আদিবাসী মৃত রঘুনাথ টুডুর ছেলে যোসেফ টুডুগং সহ ঝর্ণা টুঢু, হাবিল টুডু ও গোডা টুডু উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংর্ঘষে আদিবাসীদের ছোড়া তীর বিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই ভবানীপুর কামিল মাদ্রাসার আলিম শ্রেনির ছাত্র শাফিউল ইসলাম সোহাগ (২৫) ঘটনাস্থলে নিহত হয়। জহুরুল হক (৪৫), আদিবাসী রাকিব টুডু (২৮), রোবেন টুডু (২০), কাবলু টুডু(২১)সহ কমপক্ষে ১৫জন আহত হন। এদের মধ্যে গুরুত্বর অবস্থায় জহুরুলকে দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসধীন রয়েছে।

এ ঘটনায় বিক্ষুব্ধ গ্রামবাসী আদিবাসীদের ঘর-বাড়ী লুটপাটসহ কমপক্ষে ২০টি বাড়ীতে অগ্নিসংযেগের ঘটনা ঘটায়। ভাংচুর ও অগ্নিসংযগের ঘটনার খবর পেয়ে পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশ, ফায়র সার্ভিস ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করে। সেদিন থেকেই গ্রামটিতে এ পর্যন্ত অতিরিক্ত দাঙ্গা পুলিশ, ডিবি পুলিশ, ২ প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়। হত্যাকান্ডের ঘটনায় ওই দিন রাতেই নিহতের চাচা মাহমুদুল হক বাদি ২৮ জন আদিবাসি সাঁওতালের নাম দিয়ে এবং অজ্ঞাতনামা আরও ১৪/১৫ জনকে আসামী করে থানায় একটি হত্যা মামলা করে। পুলিশ চেলসু হেমব্রম, নরেন মাড্ডি, হাবিল টুডু ও কাবলু টুডুসহ ১৯ আদিবাসীকে গ্রেফতার করে।

মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মাহমুদ আলম জানান, হাবিবপুর গ্রামসহ আশে পাশের এলাকা থেকে ঘটনার দিন থেকে অভিযান চালিয়ে প্রায় ৩০টি গরু, ৫টি ছাগল, ২টি ভেড়া, স্যালো মেশিন, সেলাই মেশিন, টিউবওয়েল, বাইসাইকেল ও রিক্সাভ্যানসহ প্রায় মালামাল উদ্ধার করে আদিবাসীদের দেয়া হয়েছে।

দিনাজপুর জেলা প্রশাসক অহাম্মেদ শামীম আল রাজি গত মঙ্গলবার অতিরিক্ত জেলা ম্যজিষ্ট্রেট তৌহিদুল ইসলামকে আহবায়ক করে ৩ সদস্য বিশিষ্টি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন। অপর দু সদস্য হলেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর র্সাকেল) সুশান্ত সরকার ও পার্বতীপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) জাহাঙ্গীর আলম। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রদানে করবেন বলে জানা গেছে।

এদিকে গতকাল বুধবার রাত সাড়ে ১১টায় আদিবাসীদের ঘর-বাড়ী ভাংচুর লুটপাটসহ অগ্নিসংযগের ঘটনার মৃত যোগেন হেমরুন এর কন্যা নীলিমা হেমরুন বাদী হয়ে ৩ হাজার অজ্ঞাতনামা ও ৭৪ জন নামীও আসামী করে পার্বতীপুর মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত ঘটনাস্থলে থাকা পুলিশের এস আই এনায়েতুর রহমান মুঠোফোনে জানান, আদিবাসী পল্লী হাবিতপুর চিড়াকুঠা গ্রামের পরিস্তিতি এখন শান্ত রয়েছে।

Spread the love