রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরে কীটনাশক স্প্রে করে ধান ক্ষেত পুড়িয়ে দিয়েছে প্রতিপক্ষরা

পার্বতীপুর(দিনাজপুর)প্রতিনিধিঃ

 

পার্বতীপুরে ডিপ মেসিনের পানি দেয়াকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষরা আগাছা নাশক ঔষধ স্প্রে করে প্রায় ৬ বিঘা ইরি ধান ক্ষেত পুড়িয়ে দিয়েছে।

 

সোমবার পার্বতীপুর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের মন্ডলপাড়া গ্রামের মহুবার রহমানের ৪ বিঘা ও সাদেকুলের প্রায় ২ বিঘা ইরি ধান ক্ষেত আগাছা নাশক ঔষধ স্প্রে করে পুড়িয়ে দিয়েছে। পার্বতীপুর মডেল থানা পুলিশ ও গ্রামবাসী জানায়, দীর্ঘ ১০/১২ বছর পূর্বে ইসমাইল হোসেনের পুত্র মহুবার রহমান ডিপ বসিয়ে পানি সেচ ও জমি চাষ আবাদ করে আসছিল। গত ২ বছর পূর্বে একই গ্রামের আহাম্মাদ আলীর পুত্র ওবায়দুল ইসলাম একটি পানি সেচের ডিপ মেসিন বসায়। জমির মালিকরা ওবায়দুল ইসলামের কাছে পানি না নেয়ায় সে বিভিন্ন সময়ে মহুবার রহমান উপর জুলুম উত্তাচার চালিয়ে আসতো।

 

PARB Padddy-02এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওবায়দুল ইসলাম গত শনিবার রাতে মহুবার রহমানের ৪ বিঘা ও তহির উদ্দিনের পুত্র সাদেকুলের এর প্রায় ২ বিঘা ইরি রোপা ক্ষেতে আগাছা নাশক ঔষধ স্প্রে করে প্রায় ইরি ধান ক্ষেত পুড়িয়ে দিয়েছে।

 

সোমবার দুপুরে পার্বতীপুর মডেল থানার এস আই তপন কুমার পুড়িয়ে যাওয়া ক্ষতিগ্রস্ত ইরি ধান ক্ষেত পরির্দশন করেন।

 

ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক বলেন, ধার দেনা করে সার,পানি সেচ ও পরিচর্যায় দুই মাসে ধান গাছ সতেজ ও পোক্ত হয়েছে। এই মূহুর্তে তাদের যে সর্বনাশ করা হলো তাতে তারা এখন দিশেহারা হয়ে পড়েছে। ডিপ ও জমিতে পানি দেওয়ার ড্রেন নিয়ে বিরোধের জের ধরে অভিযুক্ত ব্যক্তিরা শক্রতামূলক এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে তারা জানান।

 

সংশ্লিষ্ট উপ-সহকারী কৃর্ষি কর্মকর্তা নেজামুল ইসলাম খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে ক্ষেতের অবস্থা প্রত্যক্ষ করে বলেছেন ক্ষেতে আগাছা নাশক ঔষধ স্প্রে করা হয়েছে। আক্রান্ত ধান ক্ষেত বাচাতে পরিস্কার পানি স্প্রে করার জন্য ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকদ্বয়কে পরামর্শ দিয়েছেন। উপজেলা কৃর্ষি কর্মকর্তা আবু ফাত্তাহ মোহাম্মদ রওশন কবীর জানান , তিনি এখন ঢাকায়। তবে রামপুর ইউনিয়নের বাশুপাড়া ব্লকের সংশ্লিষ্ট কৃর্ষি কর্মকর্তাকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছেন।

Spread the love