শনিবার ২৮ জানুয়ারী ২০২৩ ১৪ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরে ছাত্রী যৌন হয়রানি ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ দিনাজপুরের পার্বতীপুরে পঞ্চম শ্রেণির এক ছাত্রী কে যৌন হয়রানির অভিযোগে দর্গাপাড়া ফাজিল স্নাতক মাদ্রসার শিক্ষক ওবায়দুর রহমান কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এলাকাবাসীর দাবির মুখে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় মাদ্রসার কমিটির জরুরি সভায় অভিযুক্ত শিক্ষক ওবায়দুর রহমান কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। উপজেলা পলাশ বাড়ী ইউনিয়নের উত্তর দর্গাপাড়া গ্রামের যৌন হয়রানির শিকার ওই ছাত্রী। তার বাবা ভ্যান চালক মিজানুর রহমান ও মা আফসানার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দর্গাপাড়া ফাজিল স্নাতক মাদ্রসার আরবি’র প্রভাষক ওবায়দুর রহমান, সাইদুজ্জামান ও এবতেদায়ী শাখার শিক্ষক জহুরুল ইসলাম মাদ্রাসা ছুটির পর পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির ১৮ জন শিক্ষার্থী কে কোচিং করাতো। কিছুদিন ধরে আরবি’র প্রভাষক পার্শ্ববর্তী চান্দাপাড়া গ্রামের মৃত আবু দাউদের ছেলে ওবায়দুর রহমান ওই ছাত্রী কে গাইড বই কেনার জন্য চাপ দিতে থাকে। কিন্ত অর্থাভাবে তার পরিবার বই কিনে দিতে পারেনি। গত ৫মার্চ বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কোচিং শেষে মেয়েটি কে বলে আমি নিজের টাকায় তোমার গাইড বই কিনে এনেছি। বই তুমি নিয়ে যাও পরে টাকা দিও। এ কথা বলে সে শিক্ষক কমন রুমে মেয়েটি ডেকে যৌন হয়রানি করে এবং গাইড বইটি দিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ ঘটনার পর ওই মাদ্রাসায় যাওয়া বন্ধ করে দেয়। মেয়েটি কে মাদ্রাসায় যাওয়ার জন্য তার বাবা-মা চাপ দিলে সে শুধু ঝর ঝর করে চোখের পানি ফেলে । এক পর্যায়ে বলে সে বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করবে তবু ওই মাদ্রাসায় আর পড়তে যাবে না। পরে শিক্ষক ওবায়দুর রহমানের কু-কৃত্বির কথা সে মা আফসানা কে খুলে বলে। পরে বিষয়টি মাদ্রাসার অধ্যক্ষ ইয়াছিন আলী কে জানানো হয়। অধ্যক্ষ কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায় ক্ষুদ্ধ এলাকাবাসি শিক্ষকের শাস্তির দাবিতে গত দু’দিন ধরে মাদ্রাসা ঘেড়াও করে বিক্ষোভ মিছিল অব্যাহত রাখে। এর ফলে মাদ্রসা বন্ধ হয়ে যায়।

এব্যাপারে মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি তারিকুল ইসলাম ও অধ্যক্ষ ইয়াছিন আলী বলেন, ওই ছাত্রীর মা আফসানার অভিযোগের ভিত্তিত্বে গতকাল বৃহস্পতিবার মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির জরুরি সভায় অভিযুক্ত শিক্ষক ওবায়দুর রহমান কে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়। এছাড়াও মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি তারিকুল ইসলাম কে আহবায়ক করে পাচঁ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির অপর সদস্যরা হলেন, ইউপি সদস্য (মেম্বার) সিরাজুল ইসলাম, অভিভাবক সদস্য মাহবুবর রহমান, শিক্ষক প্রতিনিধি মোখলেছুর রহমান ও এলাকাবাসী পক্ষে আসাদুর রহমান। কমিটি কে আগামী পাচঁ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দিতে বলা বলা হয়েছে।