রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরে ১৭৪টি পুজা মন্ডবে আনসার ভিডিপি নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্য

রাইসুল ইসলাম, পার্বতীপুর (দিনাজপুর)

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ১৭৪টি পুজা মন্ডবে নিরাপত্তায় নিয়োজিত আনসার ভিডিপি সদস্য নিয়োগে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠেছে। পার্বতীপুর উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে ১৭৪টি পূজা মন্ডবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে শারদীয় দূর্গা পুজা। ১৭৪টি পুজা মন্ডব এর মধ্যে ৩২টি ঝুকিপূর্ন আশংঙ্কা। এসব পুজা মন্ডবে পুলিশের পাশাপাশি নিয়োগ দেয়া হয়েছে ৭৭০জন আনসার ভিডিপি সদস্যকে। এদের মধ্যে নারী আনসার ভিডিপি রয়েছেন ২৪৮জন। নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালনা করেন রাষ্ট্রপতি পদক প্রাপ্ত উপাজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক প্রামানিক। তিনি প্রতি সদস্যের কাছ থেকে ৫শ’ টাকা আদায় করে ডিউটি প্রদান করেছেন। তার অনৈতিক কাজে সহযোগীতা করেছেন বিভিন্ন ইউনিয়নের দালাল চক্র। পুজা মন্ডবে ৭৪০ জন আনসার সদস্য নিয়োগে হাতিয়ে নেয় ৩ লক্ষ টাকা। একজন আনসার ভিডিপি সদস্য ৫দিন ডিউটি করে পাবেন সর্বোচ্চ এক হাজার ৭শ’ টাকা।

উপজেলার বানিয়া পাড়া পুজা মন্ডবে দায়িত্ব পালনকারী আনসার ভিডিপি সদস্য আব্দুস সামাদ বলেন, তার কাছ থেকে ৫শ’ টাকা নেয়া হয়েছে। এমনি করে প্রত্যেক সদস্যের কাছ থেকেই টাকা আদায় করা হয়েছে। সবাই টাকা দিলেও ভবিষ্যতে ডিউটিসহ অন্যান্য সুযোগ সুবিধার না পাওয়ার আশংকায় কোন সদস্য মুখ খুলতে চান না। সিঙ্গীমারী কাজীপাড়া গ্রামের রফিকুল ইসলাম বলেন, তিনি ৪শ’ টাকা দিয়েছেন। টাকা কম দেয়ায় তার ডিউটি দেয়া হয়নি।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা আনসার ভিডিপি কর্মকর্তা আব্দুর রাজ্জাক প্রামানিক টাকা আদায়ের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতার সুপারিশের ভিত্তিতে আনসার ভিডিপি সদস্য নিয়োগ দেয়া হয়েছে পুজা মন্ডবে। যারা দায়িত্ব পায়নি তারা ঘুষ প্রদানের বিষয়টি গুঞ্জব ছড়াচ্ছে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার তরফদার মাহমুদুর রহমান বলেন, পুজা মন্ডবে আনসার ভিডিপি নিয়োগে ঘুষ নেওয়ার অভিযোগ পাননি তিনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Spread the love