সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুর-ঢাকা রুটে বিলম্বে ট্রেন চলাচল : যাত্রীদের ভোগান্তি

পার্বতীপুর (দিনাজপুর), প্রতিনিধি: অবরোধ ও হরতালের কারনে দেশের পশ্চিম অঞ্চলের বৃহত্তম রেলওয়ে জংশন পার্বতীপুর চার লাইনের জংশন থেকে চলাচলকারী ৪টি রেল রুটে পশ্চিম রেলের আন্তঃনগর ট্রেন সিডিউল ভেঙ্গে পড়েছে। সর্বোচ্চ ২৮ ঘন্টা বিলম্বে আন্তঃনগর একতা ও ২৭ ঘন্টা বিলম্বে চলাচল করছে দ্রুতযান ট্রেনটি। ফলে দিনের ট্রেন রাতে এবং রাতের ট্রেন দিনে চলাচল করছে। যাত্রীরা দিশেহারা হয়ে পড়েছে।

নাশকতার আশংকায় রেলওয়ের লালমনির হাট নিয়ন্ত্রন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী ট্রেনের গতি কমিয়ে রাতের বেলায় প্রতি ঘন্টায় সর্বোচ্চ ৪৬ কিলোমিটার করা হয়েছে। এ কারণেও নির্দ্ধারিত সময় সূচি অনুযায়ী ট্রেন চালানো সম্ভব হচ্ছে না বলে রেল কর্তৃপক্ষ জানান। অবরোধের কারনে ট্রেনের ট্রেনের গতি কমিয়ে দেওয়ায় এবং ট্রেনে যাত্রীদের উপচে পড়া ভীড়ের কারনে উঠানামায় দেরী হওয়ায় এ অবস্থার সৃষ্টি হচ্ছে বলে জানিয়েছেন রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

রেলওয়ে সূত্রমতে, উত্তরাঞ্চলের নীলফামারী, দিনাজপুর ও ঢাকার মধ্যে চলাচলকারী আন্তঃনগর নীলসাগর, একতা ও দ্রুতযান, লালমনির হাট ও রংপুর থেকে ঢাকা পথে চলাচলকারী আন্তঃনগর লালমনি এক্সপ্রেস ও রংপুর এক্সপ্রেস চলাচল করে। এছাড়াও খুলনা অভিমুখে সীমান্ত ও রূপসা এবং রাজশাহী পথে বরেন্দ্র ও তিতুমীর এবং বগুড়া পথে দোলন চাঁপা ট্রেন চলাচল করে। সর্বচ্চ ২৮ ঘন্টা বিলম্বে বৃহস্পতিবারের রাত ১০.৪০ মিনিটের ট্রেনটি ছেড়ে গেছে গতকাল শনিবার রাত ১২.৩০ মিনিটে। একতা টেনটি ঢাকা থেকে পার্বতীপুর স্টেশনে বিকেল সাড়ে ৫টায় পৌছার কথা থাকলেও পৌঁছেছে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এখনো আসেনি। নীলসাগর ট্রেনটি ঢাকা অভিমুখে ১৩ ঘন্টা বিলম্বে পার্বতীপুর ছেড়েছে শনিবার দুপুর ১২.৪০ মিনিটে। সীমান্ত ট্রেনটি ৪ ঘন্টা বিলম্বে খুলনা পথে ছেড়ে গেছে। একই অবস্থা রংপুর এক্সপ্রেস, লালমনি এক্সপ্রেস, ররেন্দ্র, সীমান্ত, দোলন চাঁপা, রূপসা আন্তঃ নগর ট্রেনে।

দ্রুতযান ট্রেনের যাত্রী খাদিজাতুল কোবরা জানান, তিনি দ্রুতযান ট্রেনে ঢাকা যাওয়ার জন্য পার্বতীপুর এসেছি। দ্রুতযান ট্রেনটি ২৭ ঘন্টা বিলম্বের কারনে পরিবার পরিজন নিয়ে চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন।

ঠাকুরগাঁও থেকে আসা ইলিয়াস আলী জানান, ১৫ তারিখের টিকিটের যাত্রা করছি ১৭ তারিখ দুপুর ১টায়।

পার্বতীপুর স্টেশন মাষ্টার জিয়াদুল আহসান বলেন, স্টেশনে অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ সামলানো কঠিন হয়ে পড়েছে। দেখা দিয়েছে আসন সংকোট। বাধ্য হয়ে আসন বিহীন টিকেটও দেওয়া হচ্ছে কাউন্টার থেকে।

অন্যদিকে পার্বতীপুর রেল থানার অফিসার ইনর্চাজ (ওসি) একেএম লুৎফর রহমান বলেন, নাশকতা মোকাবেলায় ট্রেন চলাচলে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।

Spread the love