শুক্রবার ১২ এপ্রিল ২০২৪ ২৯শে চৈত্র, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুরের চাঁদার না পেয়ে বোমা সদৃশ্য প্যাকেট পাঠিয়ে হুমকি

মাহমুদুল হাসান, ষ্টাফ রিপোর্টার : দিনাজপুরের পার্বতীপুর শহরের দৌলতপুর মহলস্নায় এক বিয়ে বাড়িতে চাঁদার দাবীতে অজ্ঞাত সন্ত্রাসী চক্র বোমা সদৃশ্য প্যাকেট পাঠিয়ে আতংক সৃষ্টি করে। প্যাকেট বহনের অভিযোগে আমিনুল ইসলাম (৪০) নামে এক ভ্যান চালক আটক।

 

জানা যায়, শহরের বগুড়া ট্রেডার্সের মালিক আঃ হান্নানের ৪তলা বিশিষ্ট ওই বাড়ির ৩ তলার ভাড়াটিয়া পদ্মা ওয়েল কোম্পানীর অফিস সহকারী আফতাবুর রহমানের ছেলে জানে লুৎফে আলম ওরফে সাগরের বিয়ে ছিল শুক্রবার রাতে। আনুমানিক রাত ৮টার দিকে আমিনুল ইসলাম (৪০) নামের এক ভ্যান চালক একটি প্যাকেট নিয়ে বাড়ির নাইট গার্ডের কাছে হস্তান্তর করে।

 

নাইট গার্ড ইউনুস আলী (৩০) প্যাকেটটি বিয়ে বাড়িতে পৌছে দেয়। এসময় পদ্মা ওয়েলের অফিস সহকারী আফতাবুর রহমানের ভাগ্নে ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ শাহ্জাহান-ই-হাবিব ওই প্যাকেটটি গ্রহন করেন। প্যাকেট খুলে তিনি দেখতে পান মিষ্টির প্যাকেটে বোমা সদৃশ্য ৪টি বস্ত্ত রয়েছে। এ ঘটনায় মুহুর্তের মধ্যে গোটা বাড়িতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। নাইট গার্ড ইউনুস আলী ভ্যান চালক আমিনুল ইসলামকে শহরের শহীদ মিনার এলাকা থেকে আটক করে থানায় সোপর্দ করে।

 

এব্যাপারে আফতাবুর রহমানের ভাগ্নে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ শাহ্জাহান ই- হাবিব জানান- তার মামা আফতাবুর রহমানের কাছে গত বৃহস্পতিবার ৩টি মোবাইল ফোনে ২ লাখ টাকার চাঁদা দাবী করা হয়। ওই টাকা না দেওয়ায় বোমা সদৃশ্য ৪টি বস্ত্ত পাঠিয়ে হুমকী প্রদান করা হয়।

 

বাড়ির মালিক ও বগুড়া ট্রেডার্সের স্বত্বাধিকারী আঃ হান্নানও চাঁদার দাবীতে মোবাইল করার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

 

এ ব্যাপারে পার্বতীপুর মডেল থানার ওসি মাহামুদুল আলম জানান, উদ্ধার করা ৪টি বড় জর্দার কৌটার প্রতিটিতে ৩/৪টি করে পটকা জাতীয় বিস্ফোরক ছিল। মূল আসামীদের সনাক্ত করার জন্য ভ্যান চালককে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে তিনি উলেস্নখ করেন। সেই সাথে অফিস সহকারী আফতাবুর রহমানের দেয়া ৩টি মোবাইল নম্বরের সুত্র ধরে মূল আসামীদের গ্রেফতারেরও চেষ্টা চলছে।

Spread the love