শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

পার্বতীপুর সার (বাফার) গোডাউনে ৩ দিন ধরে লোডিং আনলোডিং বন্ধ

দিনাজপুর প্রতিনিধি : নতুন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের অধীন কম মূল্যে লোডিং কাজ করতে রাজি হচ্ছে না পার্বতীপুর বাফার গোডাউনে কর্মরত অর্ধশত কুলি শ্রমিক। গত ২ জুন বুধবার থেকে গোডাউনে সার লোডিং আনলোডিং কাজ বন্ধ করে দিয়েছে তারা। বাধ্য হয়ে নতুন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বাবু এন্টার প্রাইজ পুরাতন শ্রমিকদের বাদ দিয়ে বাহির থেকে ৯০ জন নতুন শ্রমিক এনে লোডিং কাজ শুরু করেছেন। এতে করে বাফার এলাকায় শ্রমিকদের মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা যায়, পার্বতীপুর সার (বাফার) গোডাউন থেকে উত্তরের দিনাজপুর ও নীলফামারী জেলায় রাসায়নিক সার সরবরাহ করা হয়। গত অর্থবছরে সারের লোডিং ও আন-লোডিং ঠিকাদার মেসার্স শাপলা ট্রেডার্স প্রতিটন ১৩ টাকা হিসেবে টেন্ডার নিয়ে শ্রমিকদের দিত প্রতি টন ১১ টাকা হিসেবে। চলতি অর্থ বছরে নতুন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান বাবু এন্টারপ্রাইজ লোডিং টেন্ডার পেয়েছে প্রতি টন মাত্র ২ টাকা ৮০ পয়সা হিসেবে। ফলে বর্তমান রেটে কাজ করতে বলায় পূর্বের শ্রমিকরা কাজে যোগদান করতে অসম্মতি জানায়।

নতুন ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের স্বত্তাধিকারী জাহাঙ্গীর আলম বাবু বলেন, শ্রমিকরা কম রেটে কাজ করতে রাজি না হওয়ায় বাধ্য হয়ে তারা নতুন শ্রমিক দিয়ে লোডিং কাজ শুরু করেছেন। কোন শ্রমিক দিয়ে কাজ করা হবে সেটা ঠিকাদারের নিজস্ব বিষয়।

অপর দিকে, বাফার গোডাউন কুলি শ্রমিক ইউনিয়ন সাধারন সম্পাদক আনসার আলী বলেন, আমরা নিবন্ধনধারী শ্রমিক। আমাদের দিয়েই ঠিকাদারদের লোডিং কাজ করাতে হবে। তবে তা পূর্বের তুলনায় কম হওয়া চলবে না। প্রয়োজনে বাফার এলাকায় কঠোর কর্মসূচী দেওয়া হবে। বিষয়টি নিরসনে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে দরখাস্ত দিয়েছে তারা।

এ ব্যাপারে বাফার গোডাউনের দায়িত্ব প্রাপ্ত ইনচার্জ মিজানুর রহমান বলেন, লোডিং এর  বিষয়টি শ্রমিক ও লোডিং ঠিকাদারের নিজস্ব বিষয়। তবে বাফারে যাতে উভয় পক্ষের মধ্যে কোন সংঘর্ষ না ঘটে সে বিষয়ে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হচ্ছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email