সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

প্রতিবন্ধকতা ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা এদেশের জনগণের রয়েছে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমাদের সম্পদ সীমিত। এই সীমিত সম্পদের সুষ্ঠু, সাশ্রয়ী ও টেকসই ব্যবহারের মাধ্যমে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। এখানেই বিজ্ঞানীদের শক্তিকে কাজে লাগাতে হবে, যাতে কম সম্পদ ব্যবহার করে বেশি সেবা পাওয়া যায়।  বিজ্ঞান চর্চার মাধ্যমে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে।  যে কোনো প্রতিবন্ধকতা ভেঙে এগিয়ে যাওয়ার ক্ষমতা এদেশের জনগণের রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, শিক্ষা ছাড়া কোনো উন্নয়ন সম্ভব না। গবেষণার জন্য আমরা যে টাকা দিচ্ছি- সেটা আমরা মনে করি বিনিয়োগ করছি। তথ্য প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, গাজীপুরের কালিয়াকৈরে হাই-টেক পার্কের সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ও স্থাপন করা হবে।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ইয়াফেস ওসমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন ওই মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি আ ফ ম রুহুল হক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব খন্দকার মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান।

এ অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ, এনএসটি ফেলোশিপ এবং গবেষণা অনুদানের চেক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপের জন্য ২০১০ সালের জুলাই থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৮৫ কোটি ৯৫ লাখ ৫০ হাজার টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। ২২৫ জনকে বঙ্গবন্ধু ফেলোশিপ দেওয়ার লক্ষ্য রয়েছে। এরমধ্যে ২২২ জনকে ফেলোশিপের অর্থ দেওয়া হয়েছে। তাদের ২৮ জন বিদেশে এমএস ও ৪জন পিএইচডি এবং দেশে ১১ জন পিএইচডি ও পোস্ট ডক্টরেট শেষ করেছেন।

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, চলতি বছরে ১ হাজার ৩৪৩ জনকে এনএসটি ফেলোশিপের জন্য সাড়ে ৭ কোটি টাকা দেয়া হয়েছে। প্রযুক্তি উদ্ভাবন এবং গবেষণা ও উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য ৭৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৫০ লাখ টাকা, ৬২টি বিজ্ঞানসেবী সংস্থা ও প্রতিষ্ঠানকে ৪০ লাখ টাকা অনুদান, ৩৫টি বেসরকারি মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ২০ লাখ টাকা এবং বিজ্ঞানী ও গবেষকদের মধ্যে ৩৩০টি প্রকল্পের জন্য ১২ কোটি ৪০ লাখ ৫০ হাজার  টাকার বিশেষ অনুদান দেয়া হয়েছে।

Spread the love