মঙ্গলবার ১৬ অগাস্ট ২০২২ ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

প্রধানমন্ত্রী হিংসা-বিদ্বেষ-ঘৃণার’ রাজনীতি ছড়িয়ে দিয়েছেন

বিএনপির মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেছেন, বাংলাদেশের মানচিত্রে যুক্ত হওয়া প্রাক্তন ছিটমহলের নবীন নাগরিক হিংসাশ্রয়ী রাজনীতির বাইরে এতদিন থাকলেও বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ‘হিংসা-বিদ্বেষ-ঘৃণার’ রাজনীতি ছড়িয়ে দিয়েছেন।

শুক্রবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ।

দুই বিদেশি হত্যাকান্ড নিয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে জড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যকে ‘আজগুবি ভিত্তিহীন’ বলে মন্তব্য করেন রিপন। সরকার প্রধানের পক্ষ থেকে এ ধরনের ‘হাস্যকর অভিযোগ’ রাজনৈতিক শিষ্টাচারের মধ্যে পড়ে না বলেও মনে করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘বিএনপি চেয়ারপারসন চিকিৎসার উদ্দেশ্যে লন্ডনে অবস্থান করছেন। সরকার কতটা অমানবিক হলে বিরোধী দলের চেয়ারপারসনের প্রতি এধরনের মনগড়া-আজগুবি মন্তব্য করতে পারেন, যা খুবই দুঃখজনক। বাংলাদেশের মানুষ এসব অপরাজনীতি ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান  করে।’

বিএনপি গণতন্ত্র পন্থায় রাজনীতি করে জানিয়ে দলটির মুখপাত্র বলেন, ‘জ্বালাও পোড়াও রাজনীতির সঙ্গে বিএনপির কোন সংশ্লিষ্টতা নেই। সরকারের লোকেরাই বিগত আন্দোলনে নানা জায়গায় পেট্রোল-বোমা-অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটিয়েছে এবং নানা স্থান থেকে তারা ধরাও পড়েছে।’

সরকার অসৎ উদ্দেশ্যে বিএনপির বিরুদ্ধে ‘গোয়েবলসীয় প্রচারণায়’ মত্ত রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘তাদের এসব প্রচারণার উদ্দেশ্য কী, তা বাংলাদেশের মানুষ জানেন এবং দেশের বিদেশি বন্ধুরাও বুঝেন বলে আমরা বিশ্বাস করি।’

বিএনপি এবং দলটির চেয়ারপারসনের প্রতি ‘অসত্য প্রচারণা’ থেকে বিরত থাকার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে রিপন বলেন, ‘আমরা মনে করি তারা এসব অপপ্রচার করে কোনো রাজনৈতিক ফায়দা লাভ করতে পারবে না। শুধু রাজনৈতিক পরিবেশটাকেই আরো কলুষিত করতে পারবে এসবের মধ্য দিয়ে।’

কুড়িগ্রামের দসিয়ারছড়ায় মুজিব-ইন্দিরা নামে নতুন ইউনিয়ন পরিষদ গঠনের উদ্যোগের কথা জানিয়ে বিএনপির মুখপাত্র বলেন, ‘ইন্দিরা হবে কেন? এ চুক্তি বাস্তবায়নে তার কোনো অবদান নেই। বরং এ চুক্তি বাস্তবায়নে নরেন্দ্র দামোদার দাস মোদির অবদান রয়েছে।’

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email