সোমবার ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ৬ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীর মাছের আঁশ এখন বিশ্ববাজারে

মেহেদি হাসান, ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ফেলে দেওয়া মাছের আঁশ বিক্রি করে লাভবান হচ্ছেন অনেকেই। প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার থেকে গড়ে দুই থেকে আড়াই মণ ভেজা আঁশ সংগ্রহ করে সেগুলো রোদে শুকিয়ে চীন, জাপান, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে রপ্তানির জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে।

জানা যায়, বর্তমানে মাছের ফেলে দেওয়া আঁশ সংগ্রহ ও বিক্রির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন অন্তত ৫০ জন। এই ব্যক্তিরা প্রতিদিন উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার থেকে গড়ে দুই মণ ভেজা আঁশ সংগ্রহ করেন। সংগ্রহ করা আঁশগুলো নিজ নিজ বাড়িতে নিয়ে রোদে শুকিয়ে বস্তাজাত করে রাখেন। পরবর্তীতে রাজশাহী, সৈয়দপুর ও নওগাঁ থেকে ক্রেতারা গিয়ে সেগুলো নিয়ে যান। সেগুলো ঢাকার পাইকার ব্যবসায়ীরা চীন, জাপান, ইন্দোনেশিয়া, দক্ষিণ কোরিয়া ও থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন দেশে রপ্তানি করেন। মাছের আঁশ দিয়ে ওইসব দেশে উন্নতমানের প্রসাধনী, ফুড সাপ্লিমেন্ট ও ক্যাপসুলের ক্যাপসহ জরুরি সামগ্রী তৈরি করা হয়।

আঁশ সংগ্রহকারী ফুলবাড়ী পৌর বাজারের মাছ ব্যবসায়ী সমবারু মিয়া, রেজাউল ইসলাম ও মোজাফ্ফর হোসেন বলেন, মাছের আঁশ সংগ্রহের পর সেগুলো ৪-৫ মণ জমা হলে পাইকাররা বাড়ি থেকে কিনে নিয়ে যান। প্রতিকেজি প্রকারভেদে ৫০-৬০ কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে করোনা মহামারীর আগে এগুলো ১০০ থেকে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতো।

সরাসরি রফতানির সুযোগ না থাকায় তারা চাহিদা অনুযায়ী লাভ করতে পারছেন না। ভবিষ্যতে যদি সরাসরি রপ্তানির সুযোগ পান, তবে আশানুরূপ লাভবান হবেন এবং ব্যবসার পরিধি সম্প্রসারণ ঘটবে বলে জানান তারা।

পৌরবাজারের পাইকার মাছ ব্যবসায়ী আব্দুল জব্বার আলী জানান, স্থানীয় মাছ ব্যবসায়ীদের মাছের আঁশগুলো ফেলে না দিয়ে যত্ন সহকারে জমিয়ে রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়। আগে সৈয়দপুর, নওগাঁ, রাজশাহী, ঢাকা ও চট্টগ্রাম থেকে পাইকাররা এসে মাছের আঁশগুলো নিয়ে যেতেন। কিন্তু এখন স্থানীয়ভাবেই মাছের আঁশ সংগ্রহ ব্যবসায় অর্ধশত ব্যক্তি যুক্ত হয়েছেন। এটি সরাসরি বিদেশে রপ্তানি করতে পারলে লাভ অনেক বেশি হবে। এতে সরকারি সহযোগিতা ও পৃষ্ঠপোষকতার প্রয়োজন।

উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাশেদা আক্তার জানান, মাছের আঁশ সংগ্রহ ও বিক্রির বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। বিষয়টি ভালোভাবে জেনে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

Spread the love