রবিবার ২১ এপ্রিল ২০২৪ ৮ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠনের বিক্ষোভ মিছিল তেল গ্যাস কমিটির সমাবেশ

শেখ সাবীর আলী ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) : ফুলবাড়ীবাসীর প্রাণের দাবী ‘‘স্থায়ী সম্পদ ধ্বংস করে ফুলবাড়ীতে কয়লা খনি চাই না’’, এশিয়া এনার্জিকে বাংলাদেশ থেকে প্রত্যাহার, কয়লা খনি বিরোধী আন্দোলনকারী নেতৃবৃন্দের নামে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার ও ফুলবাড়ীবাসীর সঙ্গে ২০০৬ সালে সম্পাদিত চুক্তি বাস্তবায়নের দাবীতে আজ শনিবার সকাল ১১টায় দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠন ও ফুলবাড়ীবাসী বিক্ষোভ মিছিল এবং পথসভা করেছেন। অপরদিকে ‘‘উন্মুক্ত না, বিদেশী না, রপ্তানী না’’ শেস্নাাগানকে সামনে রেখে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি পৃথক ভাবে উর্বশী সিনেমা হলের সামনে সমাবেশ কর্মসূচী পালন করে।

সকাল ১১টায় ফুলবাড়ী পৌর বাজারে ব্যবসায়ী সমিতি’র কার্যালয় থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়ে ফুলবাড়ী পৌর শহর প্রদক্ষিণ করে পুনরায় ব্যবসায়ী সমিতি’র কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। মিছিল শেষে ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ের সামনে এক পথসভা অনুষ্ঠিত হয়। পথসভায় সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠনের সদস্য সচিব সাংবাদিক শেখ সাবীর আলীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠনের আহবায়ক পৌর মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক, পৌর কাউন্সিলর মোতাহার হোসেন, পৌর কাউন্সিলর আতাউর রহমান, পৌর কাউন্সিলর ময়েজ উদ্দিন, পল্লী চিকিৎসক সমিতির সভাপতি ডা: মকলেছুর রহমান প্রমুখ।

সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠনের আহবায়ক পৌর মেয়র মুরতুজা সরকার মানিক বলেন, ফুলবাড়ীবাসীর একটাই দাবী স্থানীয় সম্পদ ধ্বংস করে কয়লা খনি চাই না। এই দাবী পূরণের জন্য অবিলম্বে এশিয়া এনার্জির দায়ের করা আন্দোলনকারী নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারসহ এশিয়া এনার্জিকে বাংলাদেশ থেকে প্রত্যাহার করে খনি কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে এবং ২০০৬ সালের ফুলবাড়ীবাসীর সাথে সম্পাদিত চুক্তি বাস্তবায়ন করতে হবে। অন্যথায় ফুলবাড়ীবাসী আবারও ২০০৬ সালের ন্যায় গণ আন্দোলন গড়ে তুলে অবরোধ কর্মসূচি’র মত কঠোর আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে। তিনি এ সময় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করে বলেন, আপনার দেয়া অঙ্গিকার বাস্তবায়নের জন্য ফুলবাড়ীবাসী আশায় বুক বেধে আছেন। যদি বাস্তবায়ন না হয় আবারও যে আন্দোলন সৃষ্টি হবে, আর উদ্বুদ্ধ যে কোন পরিস্থিতির জন্য সরকারকেই মাসুল গুনতে হবে।

অপরদিকে তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি স্থানীয় উর্বশী সিনেমা হলের সামনে বিকেল ৩টায় সমাবেশ করে। তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এশিয়া এনার্জির দায়ের করা আন্দোলনকারী নেতৃবৃন্দের নামে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, এশিয়া এনার্জির প্রধান গেরি এন লাইকে গ্রেফতার, বড়কুরীয়া খনিকে উম্মুক্ত করার ষড়যন্ত্র বন্ধ ও ২০০৬ সালে সম্পাদিত ৬ তফা চুক্তি পুর্ণ বাস্তবায়ন জন্য আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় বেধে দিয়ে আল্টিমেটাম দিয়েছেন, তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি। একই সাথে ৩১ ডিসেম্বরের মধ্য দাবী পুরন না হলে ২০১৫ সালের ৭ ফেব্রুয়ারী ফুলবাড়ীসহ উত্তারাঞ্চলে অবরোধ কর্মসুচি ঘোষণা দিয়েছেন।

তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ডাকে সমাবেশে ফুলবাড়ী শাখার আহবায়ক সৈয়দ সাইফুল ইসলাম জুয়েলের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, তেল গ্যাস খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির আহবায়ক প্রকৌশলী শেখ মোহাম্মদ শহিদুল্লাহ্, বিশেষ অতিথি হিসেবে কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মোহাম্মদ, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও তেল গ্যাস কমিটির কেন্দ্রীয় নেতা রুহিন হোসেন প্রিন্স, গণফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক টিপু বিশ্বাস, কেন্দ্রীয় নেতা কল্লোল মোস্তফা, গার্মেন্টস্ শ্রমিকের কেন্দ্রীয় নেতা মোশরেকা মিশু, গণ সংহতি আন্দোলনের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, বিপ্লবী ওয়াকার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক আঃ সাত্তার, বাসদ (মার্কস্ বাদী সমন্বয়ক শুর্ভাংশ চক্রবর্তী। বাসদ (মাহাবুব) কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক ইয়াছিন মিয়া, বাসদ (খালেকুজ্জামান) কেন্দ্রীয় নেতা বজলুল হোসেন ফিরোজ, ওয়াকার্স পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ফজলে হোসেন বাদশা এমপি, তেল গ্যাসের কেন্দ্রীয় নেতা মোশারফ হোসেন নান্নু,। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ফুলবাড়ী শাখার সদস্য সচিব জয়প্রকাশ গুপ্ত, সাবেক সদস্য সচিব এসএম নুরুজ্জামান, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম বাবলু, ফুলবাড়ীর অন্যতম নেতা এমএ কাইয়ুম, হামিদুল হক, ওয়াকার্স পার্টির ফুলবাড়ী শাখার সমন্বয়ক শফিকুল ইসলাম শিকদার প্রমুখ।

Spread the love