রবিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪ ১২ই ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীতে ১০টাকা কেজির চাল বিক্রির তালিকা প্রণয়নের অনিয়ম ॥ চেয়ানম্যান-মেম্বার দ্বন্দ

দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ হতদরিদ্র ও দুস্থ্যদের জন্য ১০টাকা কেজি দরে চাল বিক্রির তালিকা প্রণয়নে অনিয়মের অভিযোগ ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বার একে অপরকে দোষারোপ করেছেন।

অভিযোগের প্রক্ষিতে শুক্রবার দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের বাসুদেবপুর (পুরাতন বন্দর) এলাকায় চাল বিক্রি পরিদর্শনে গিয়ে অনিয়মের সত্যতা পাওয়ায় ৪টি কার্ডের চাল বিক্রি বন্ধ করে দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. এহেতেশাম রেজা।

যাদের কার্ডের চাল সরবরাহ বন্ধ করা হয়েছে তারা হলেন, ওই ইউপির ৮নং ওয়ার্ডের মজিবর রহমান (কার্ড নং ৬৭৯৬), একই ওয়ার্ডের রিপন চন্দ্র (কার্ড নং ৬৮৫১), ৯নং ওয়ার্ডের আব্দুস সাত্তার ডিসি (কার্ড নং ৬৯৮৯) ও একই ওয়ার্ডের বিপ্লব (কার্ড নং ৭৯৯৬)। ৯নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বাবলু’র ভাই হাইকুল ইসলাম হতদরিদ্র কিংবা দুস্থ না হলেও তার নামে বরাদ্দ দেয়া হয়েছে কার্ড। যার কার্ড নং ৬৯৭৪।

স্থানীয়রা জানায়, হতদরিদ্র ও দুস্থদের তালিকা প্রণয়নে ফুলবাড়ী উপজেলার  শিবনগর ইউনিয়নে ইউপি চেয়ারম্যান ও মেম্বার এর দ্বন্দতার কারণে জটিলতা তৈরি হয়েছে। দ্বন্দ্ব হয়ে দু’ভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েছেন চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যরা। চেয়ারম্যান ও ইউপি সদস্যদের দ্বন্দ্বের কারণে গত সেপ্টেম্বর মাসে ঐ ইউনিয়নের দুস্থরা চাল প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। তালিকা নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ উঠলে একে অপরকে দুষছেন।

এ ব্যাপারে ৯ নং ওয়ার্ড এর ইউপি সদস্য সাইফুল ইসলাম বাবলু সাংবাদিকদের বলেন, তার ভাই হতদরিদ্র কিং বা দুস্থ নয়। তবে তার নাম তালিকায় দেখে তিনি সেটি কেটে দেয়ার জন্য চেয়ারম্যান ও সচিবকে বলেছেন। তারপরও কিভাবে তালিকায় তার নাম আছে তা তার জানা নেই। তবে তার ভাই চাল তুলবে না।

ইউপি চেয়ারম্যান মামুনুর রশিদ চৌধুরী বিপ্লব বলেন, কিছু ইউপি সদস্য প্রকৃত হতদরিদ্র ও দুস্থদের নামের তালিকা না দিয়ে নিজেদের পছন্দের লোকজন যারা হতদরিদ্র কিংবা দুস্থ নয় এমন সব লোকের নামের তালিকা দেয়ায় সেগুলো মধ্যে কিছু কেটে প্রকৃত ব্যক্তিদের তালিকা করা হয়েছে। এরপরেও ইউপি সদস্যদের দেয়া তালিকাগুলোতেই চাল দিতে গিয়ে অনিয়মগুলো ধরা পড়ছে। বিষয়গুলো উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হয়েছে।

Spread the love