শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফুলবাড়ীর দৌলতপুরে স্কুল উন্নয়নের নামে শতবছরের বৃক্ষ নিধন এলাকাবাসীর ক্ষোভ

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার দৌলতপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ে কর্তৃপক্ষ বিদ্যালয়ের উন্নয়নের অজুহাতে ঐ এলাকার শতবছরের ঐতিহ্যবাহী একটি ছায়াদান বটগাছসহ অসংখ্যক গাছ নিধ্ন করার অভিযোগ করেছেন গ্রামের বাসিন্দারা। এলাকাবাসীরা জানায় স্কুল কর্তৃপক্ষ গত ১২ জুলাই শনিবার হঠ্যাৎ শতবছরের ছায়াদান শতবছরের ঐতিহ্যবাহী বৃক্ষ বটগাছটি কাটতে শুরু করে, বটগাছটি কাটা দেখে গ্রামবাসীরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করে কিন্তু গ্রামবাসীদের বাধা উপেক্ষা করে স্কুল কর্তৃপক্ষ তাদের বৃক্ষ নিধ্ন কাজ চালিয়ে যেতে থাকলে তারা ফুলবাড়ী সহকারী কমিশনার (ভূমি)’র নিকট অভিযোগ করেন। এলাকাবাসীর অভিযোগের ভিত্তিতে গত ১৩ জুলাই উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও দৌলতপুর ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং গাছটি খাসের জায়গায় না থেকে জেলা বোর্ড রাস্তার জায়গায় রয়েছে বলে তারা আইনগত ভাবে বাধা প্রদান না করে ফিরে আসেন। এরপর গত ১৪ জুলাই সোমবার ভোর রাতেই শত বছরের ঐ বটগাছটিসহ একই জায়গায় অবস্থিত একটি কদমগাছ ও একাধিক আকাশমনি, ইউক্লিপটাস গাছ সয়লাভ করে দেয়।

এ বিষয়ে দৌলতপুর ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মিজানুর রহমানের সাথে কথা বললে তিনি বলেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক গাছ কাটা হয়েছে। গাছ কাটার পূর্বে বন বিভাগের অনুমতি নেয়া হয়েছে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন বিদ্যালয়ের প্রয়োজনে গাছ কাটা হয়েছে বন বিভাগ কে বলে তিনি পাল্টা প্রশ্ন করেন।

সহকারী কমিশনার (ভূমি) এ,বি,এম, রওশন কবীর এর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এলাকাবাসীর অভিযোগ মোতাবেক উপজেলা ভূমি অফিসের সার্ভেয়ার ও ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তাকে পরিদর্শনসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল কিন্তু বটগাছটি খাসের জায়গায় না থাকায় অত্রাফিসের একতিয়ার বহির্ভূত হওয়ায়, গাছ কর্তনকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার সম্ভব হয়নি।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email