শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজি আটক

Farnceবিচার প্রক্রিয়ায় প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে ফ্রান্সের সাবেক প্রেসিডেন্ট নিকোলা সারকোজিকে আটক করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার তাকে আটক কর হয়েছে বলে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের অনলাইন সংস্করণে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে। তাকে প্যারিসের কাছে নাতেরিতে আটকে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবের জানানো হয়, ফ্রান্সের কোনো সাবেক প্রেসিডেন্টকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের ঘটনা এটিই প্রথম। মামলা প্রক্রিয়াকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেছেন সারকোজি। প্রসঙ্গত ৫৯ বছর বয়সী ২০০৭ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ছিলেন নিকোলা সারকোজি। ২০১৭ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার পরিকল্পনা করছেন তিনি। ফলে তাকে আটক করার এ ঘটনাকে তার রাজনৈতিক আকাঙ্ক্ষার ওপর একটি আঘাত হিসেবে দেখা হচ্ছে।
তদন্ত কর্মকর্তারা প্রাথমিকভাবে আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত সারকোজিকে আটকে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবেন। এ মেয়াদ আরও এক দিন পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। সাবেক এ প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে থাকা একটি মামলার গোপন তথ্য বের করে আনার চেষ্টার অভিযোগে এর আগের দিন তার এক আইনজীবীকে আটক করা হয়। তাকেও জিজ্ঞসাবাদ করা হবে।
এদিকে গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, প্যারিসের কাছে একটি পুলিশ স্টেশনে সারকোজিকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। সাময়িক সময়ের জন্য তাকে আটক করা হলেও প্রয়োজনে আটকের সময় বাড়ানো হতে পারে। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ, প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রচারণার জন্য অন্যায়ভাবে তহবিল সংগ্রহের একটি মামলায় সারকোজি গোপন তথ্য বের করার চেষ্টা করেছিলেন এবং এর বিনিময়ে প্রভাব খাটিয়ে একজন বিচারপতিকে উচ্চ পদ পাইয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন বলেও তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আছে।
খবরে প্রকাশ, নির্বাচনী প্রচারণার জন্য সারকোজি কয়েকজন ধনাঢ্য ব্যক্তির কাছ থেকে তহবিল সংগ্রহ করেছেন বলে দীর্ঘদিন ধরে শোনা যাচ্ছে। দাতাদের মধ্যে দেশটির সবচেয়ে ধনী নারী এল ওরিয়েল কসমেটিক্স এর সত্বাধিকারী লিলিয়ানি বেতেনকোর্ট ও লিবিয়ার প্রয়াত এক নায়ক মুয়াম্মার গাদ্দাফির নাম শোনা যাচ্ছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email