বুধবার ৪ অগাস্ট ২০২১ ২০শে শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার উদ্যোগে গর্ভেশ্বরী শ্মশানে বৃক্ষরোপন ও চারা বিতরণ

কাশী কুমার দাস, স্টাফ রিপোর্টার ॥ “গাছ লাগান-পরিবেশ বাঁচান” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১৩ জুন রবিবার রাজবাটী গর্ভেশ্বরী শ্মশান সংস্কার কমিটির আয়োজনে এবং বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলার সহযোগিতায় বৃক্ষরোপন ও গাছের চারা বিতরণ কর্মসূচী পালিত হয়েছে।
গর্ভেশ্বরী শ্মশান সংস্কার কমিটির সভাপতি দেবাশীষ ভট্টাচার্যের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক পদক প্রাপ্ত মনিরুজ্জামান জুয়েল। উদ্বোধক হিসেবে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও জেলা ত্রাণ কমিটির আহবায়ক আলতাফুজ্জামান মিতা। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর হর্টিকালচার সেন্টারের উপ-পরিচালক মোঃ এজামুল হক, সাবেক কমিশনার, বিশিষ্ট সমাজসেবক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব হারুন-উর রশিদ রাজা। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শ্মশান কমিটির কোষাধ্যক্ষ চন্দন ভট্টাচার্য্য, নির্বাহী সদস্য জয়ন্ত কুমার ঘোষ, মহিলা সম্পাদিকা রিনা সেন, যুবলীগ নেতা মোঃ জাকির হোসেন, জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক সিফাত রহমান লিমন। সঞ্চালকের দায়িত্ব পালন করেন বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা দিনাজপুরের কোষাধ্যক্ষ প্রদীপ ঘোষ। উদ্বোধক আলতাফুজ্জামান মিতা বলেন, গাছ কখনো প্রতারণা করে না। গাছ মানুষকে অক্সিজেন দেয়, ছায়া দেয়, ফল দিয়ে উপকৃত করে। প্রধান অতিথি বঙ্গবন্ধু শিশু কিশোর মেলা কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক পদক প্রাপ্ত মনিরুজ্জামান জুয়েল বলেন, গাছ বিপদের বন্ধু। গাছ ব্যাংকের সঞ্চয়পত্রের মত আপনাকে এবং আপনার পরিবারকে সহযোগিতা করে। গাছ পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করে। তিনি আরও বলেন, দিনাজপুরে আমি ৫০ হাজার গাছ পর্যায়ক্রমে বিতরণ করেছি। ৬০ হাজার কম্বল শীতার্ত মানুষের মাঝে বিতরণ করেছি, মানুষের সেবা করার ব্রত নিয়ে আমি কাজ করে যাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক আমি যে পদক এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছি তা শুধু দিনাজপুর বাসীর ভালোবাসা আর দোয়ার কারণে। আপনারা আমার জন্য এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। আলোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথি মনিরুজ্জামান জুয়েল, উদ্বোধক আলতাফুজ্জামান মিতা, হর্টি কালচার দিনাজপুর হর্টিকালচার সেন্টারের উপ-পরিচালক মোঃ এজামুল হক, হারুন উর রশিদ রাজা সহ অতিথিবৃন্দ শ্মশান চত্বরে কয়েকটি বৃক্ষ রোপন করে কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন।

Please follow and like us:
RSS
Follow by Email