শনিবার ২৫ জুন ২০২২ ১১ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাঁধ ভেঙ্গে জোয়ারের পানিতে ১৯ গ্রাম প্লাবিত

আমতলী, বরগুনা : রবিবার পায়রা নদীতে অস্বাভাবিক জোয়ারের কারনে নদী তীরবর্তী ১৯ টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। জোয়ারের তোড়ে বালিয়াতলী ও তালতলীর তেতুল বাড়িয়া বেড়ি বাঁধ ভেঙ্গে ৪টি গ্রাম তলিয়ে যায়। ফলে ব্যাপক ভোগান্তির স্বীকার হয়েছে ওই সব এলাকার প্রায় ৫০ হাজার বাসিন্ধাদের। পায়রা নদীতে পানি বৃদ্দি পাওয়ায় পায়রা নদীর ফেরির গ্যাংওয়ে তলিয়ে যাওয়ায় ৪ ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। ফওে যাত্রীদেও ভোগান্তি চরমে পৌছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ড ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, শনিবার ও রবিবার দু , দফায় পায়রা নদীতে পুর্নিমার জোয়ার ও পূবালী বাতাশের কারনে অস্বাভাবিক ভাবে জোয়ারের পানি বেড়ে যায়। পানি বৃদ্দির ফলে রবিবার সকালে বালিয়াতলীর বেরি বাঁধের ২৫ ফুট ধসে ওই এলাকার পশুরবুনিয়া, বালিয়াতলী, ও ঘোপখালী তলিয়ে যায়। শনিবার রাতে তেতুলবাড়িয়া বেড়ি বাঁধ ভেঙ্গে জোয়ারের পানি ঢুকে ওই এলাকা পস্নাবিত হলে আনোয়ার হোসেন মলি­কের প্রায় ৩শ’বিঘা এবং আনু চৌকিদারের ৮০ বিঘা ঘেরের মাছ ভেসে গেছে। এছাড়া জোয়ারের পানিতে নদী তীরবর্তী খোট্টার চর, জয়ালভাঙ্গা, চরপাড়া, গাবতলী, নলবুনিয়া, নিন্দ্রার চর, আশার চর, ছোট আমখোলা, নিশানবাড়িয়া, চরপাড়া গুচ্ছ গ্রাম, ঘোপখালী, লোছা, আমতলী ফেরি ঘাট, পুরান বাজার, আঙ্গুলকাটা, গুলিশাখালী ও হরিদ্রা বাড়িয়া সহ নিমণাঞ্চাল প­াবিত হয়েছে। আমতলী ফেরির চালক মো: খোকন জানান, অস্বাভাবিক জেয়ারে পায়রা নদীর ফেরির দুপারের গ্যাং ওয়ে তলিয়ে যাওয়ায় সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ২টা পর্যমত্ম ৪ ঘন্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। ফলে যাত্রীদের ভোগামিত্ম চরমে পৌছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড বরগুনার উপবিভাগীয় প্রকৌশলী গাজী নূরমহম্মদ জানান, স্বাভাবিকের চেয়ে রবিবার পায়র নদীতে বিপদ সীমার দুই থেকে আড়াই ফুট উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হওয়ায় আমতলী ও তালতলীর অনেক নিমণাঞ্চাল পস্নাবিত হয়েছে। তিনি আরো বলেন, সিডরের পর ওই এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ বেড়ি বাঁধ সঠিক ভাবে পুন:নিমান না হওয়ায় অনেকটা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email