শনিবার ১৩ অগাস্ট ২০২২ ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাঁধ সংস্কারে দুর্নীতির অভিযোগে নির্বাহী প্রকৌশলী সহ ৪জন চাকুরী থেকে বরখাস্ত

মো. জাকির হোসেন, রংপুর ব্যুরো চীফ : পানি উন্নয়ন বোডের আওতায় সর্ববৃহৎ সেচ প্রকল্প তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া ডিবিশনের পওর বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সহ চার জন কে চাকুরী থেকে সাময়িক বরাখাস্ত করা হয়েছে। বরখাসত্মকৃতরা হলো নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান,উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ফজলুল হক,সহকারি প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম ও শাখা কর্মকর্তা(এসও) তোবারক আলী। বৃহস্পতিবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেন উত্তরাঞ্চলের রংপুর পানি উন্নয়ন বোডের প্রধান প্রকৌশলী আতিকুর রহমার। তিনি বলেন, পানি উন্নয়ন বোডের মহা-পরিচালক ইসমাইল হোসেনের স্বাক্ষরিত এক আদেশে এদের চাকুরী থেকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

এই চার ব্যাক্তিকে চাকুরী থেকে বরখাস্তের বিষয়ে জানা যায়, গত অর্থ বছরে তিস্তা ব্যারাজের আরএসকিউ ও ইমার্জেন্সি ওয়ার্কের প্রায় ১৬ কোটি টাকার কাজে ব্যাপক অনিয়ম ও দূর্নীতি করা হয়। যা বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল চলতি বছরের আগষ্ট মাসে। সংবাদ প্রকাশের পর পানি উন্নয়ন বোডের ঢাকা প্রধান কার্যালয়ের একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত টিম এলাকা পরিদর্শন করেন। তদন্ত টিমের পরিদর্শনে ঘটনার সত্যতা মেলে। বিশেষ করে তিস্তা ব্যারাজের ভাটি ডাউয়াবাড়ি এলাকার ডানতীর বাঁধ সংস্কার ও ভাঙ্গন রোধে ৪৫ সেন্টিমিটার মাপের সিসি ব্লক নির্মান বা স্থাপন না করে সেখানে ৩৫ সোন্টিমিটার মাপের সিসি ব্লক ব্যবহার করে ব্যাপক অনিয়মের মাধ্যমে কোটি টাকা আত্নসাত করা হয়। এই সব কাজের তদারকির প্রধান দায়িত্ব পালন করেন তিস্তা ব্যারাজ ডালিয়া ডিভিশনের পওর বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী ফজলুল হক। তার উপস্থিতিতেই এই কাজে ব্যাপক অনিয়ম করা হয়েছিল। সুত্র মতে, যেহেতু ওই কাজের সার্বিক দেখা শোনার দায়িত্ব পালনে ছিলেন নির্বাহী প্রকৌশলী মোস্তাফিজুর রহমান,সহকারি প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম ও শাখা কর্মকর্তা(এসও) তোবারক আলী। সেহেতু একই কারনে তারাও এ ঘটনার সাথে জড়িত থাকায় তদন্ত টিমের প্রতিবেদনে উক্ত চারজন কে চাকুরী থেকে সাময়িত বরখাস্ত করা হয়।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email