মঙ্গলবার ১৬ অগাস্ট ২০২২ ১লা ভাদ্র, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘বাংলাদেশে এখন দুঃসময় চলছে : ফখরুল

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, ‘বাংলাদেশে এখন দুঃসময় চলছে। এখন স্বাধীন চিন্তা ও মুক্তবুদ্ধির চর্চার কোনো অবকাশ নেই।’এখন বিরোধী মত দমন করে মুক্তচিন্তার কণ্ঠরোধ করা হচ্ছে।

শুক্রবার বিকালে প্রয়াত চলচ্চিত্রকার চাষী নজরুল ইসলামের ৭৫তম জন্মবার্ষিকী স্মরণে রাজধানীর কমলাপুরের জসিমউদ্দিন সড়কে তার বাসায় এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ২০১৫ সালের ১১ জানুয়ারি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান চাষী নজরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালের আগে থেকেই সুন্দর একটি বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলাম, তার জন্য একাত্তরে লড়াই করেছি। কিন্তু আজকে আমাদের দুর্ভাগ্য, দীর্ঘদিন পরে এসে এখন শ্বাসরুদ্ধ হয়ে যায়। যারা সত্য কথা বলতে চান, ভিন্নমত পোষণ করতে চান, তাদেরকে নির্যাতন-নিপীড়ন করা হচ্ছে।’

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ সবসময়ই তাদের অধিকারগুলোকে সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আদায় করেছে। সেই সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আবারো এসব অধিকার ফিরিয়ে আনবে তারা। এটাই ইতিহাস। হতাশ হওয়ার কারণ নেই। নিঃসন্দেহে একদিন আমরা সফল হবো। এদেশের মানুষ স্বাধীন চিন্তা ও মুক্তবুদ্ধির পরিবেশ ফিরে পাবে।’

চাষী নজরুল ইসলামকে বিরল ব্যক্তিত্ব হিসেবে অভিহিত করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বড়মাপের সৃজনশীল মানুষ ছিলেন তিনি। এই মহান সৃষ্টিশীল মানুষটিকে আমাদের বারবার স্মরণ করা উচিত। শুধু এটা স্মরণ করিয়ে দেওয়ার জন্য যে, আমরা হেরে যাইনি। আমরা মানুষের অধিকারের জন্য লড়াই করছি, করতে থাকবো।’

তিনি বলেন, ‘চাষী ভাইকে এদেশের মানুষ দীর্ঘকাল মনে রাখবে। তার সৃজনশীলতা যেন হারিয়ে যেতে বসেছে। যা আমজাদ ভাই (আমজাদ হোসেন), গাজী ভাইও (গাজী মাজহারুল আনোয়ার) বলেছেন। আমাদের চলচ্চিত্র অঙ্গনে এখন যেন সৃষ্টিশীল মানুষ সামনেও আসতে পারছেন না। আমি আমজাদ ভাইকে জিজ্ঞাসা করছিলাম, ছবি বানাচ্ছেন। তিনি বললেন, অনেকদিন ছবি বানাই না। কারণ সেই পরিবেশ নেই।’

প্রখ্যাত নাট্যকার আমজাদ হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রয়াত চাষী নজরুলে কর্মজীবনের ওপর বক্তব্য রাখেন চলচ্চিত্রকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, অধ্যাপক তারেক শামসুর রহমান, ডক্টরস অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচিব অধ্যাপক এ জেড এম জাহিদ হোসেন, ছড়াকার আবু সালেহ, প্রয়াত চাষী নজরুলের সহধর্মিনী জ্যোৎস্না কাজী, জাতীয়তাবাদী সামাজিক সাংস্কৃতিক সংস্থা (জাসাস) সভাপতি এম এ মালেক, জিয়া সাংস্কৃতকি সংগঠন (জিসাস) আবুল হাশেম রানা, জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

এ ছাড়া কণ্ঠশিল্পী হাসান চৌধুরী, চিত্রনায়ক হেলাল খান, প্রয়াত চিত্রনায়ক মান্নার স্ত্রী শেলী মান্না, চিত্র পরিচালক নাসিরউদ্দিন মিলনও বক্তব্য রাখেন।

সকালে জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মুন্সিগঞ্জের শ্রীনগরের গ্রামে ‘একুশের বাড়ি’তে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি, জাতীয়তাবাদী চলচ্চিত্র পরিষদ, গণসংস্কৃতি দল, জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক জোটসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা প্রয়াত চলচ্চিত্রকারের কবরে পুস্পমাল্য অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। চাষী নজরুলের সহধর্মিনী জ্যোৎস্না কাজী, তার মেয়ে আন্নি ইসলাম, জামাতা রবিউল ইসলাম রনিও কবর জিয়ারত করেন।

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email