মঙ্গলবার ৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩ ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশ ট্রাক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন ও বাংলাদেশ ট্রাক বন্দোবস্তকারী শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে মে দিবস পালিত

S Tarakদিনাজপুর প্রতিনিধিঃ মহান মে দিবস ও আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস উপলক্ষে বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ ট্রাক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন গভঃ রেজিঃ নং-বি-২৮৬৮ ও বাংলাদেশ ট্রাক বন্দোবস্তকারী শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং- বি-১৭৬৮ প্রধান কার্যালয় এর  উদ্যোগে মে দিবস পালিত। সংগঠনের প্রধান কার্যালয় পুলহাট  বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালীতে অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ ট্রাক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন গভঃ রেজিঃ নং-বি-২৮৬৮ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুরাদ আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ সাইফুল্লাহ হারু, বাংলাদেশ ট্রাক বন্দোবস্তকারী শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং- বি-১৭৬৮ এর সভাপতি সুকুমার দাস, সহ-সভাপতি রনজিৎ কুমার দাস, শ্রমিক নেতা রমজান আলী, মোঃ সুলতান, মোঃ আসাদ, মোঃ শরিফ প্রমুখ। র‌্যালী শেষে দিনাজপুর শহরের পুলহাটস্থ কার্যালয়ের সামনে মে দিবেসের তাৎপর্য নিয়ে আলোচনা  সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ ট্রাক বন্দোবস্তকারী শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং- বি-১৭৬৮ এর সভাপতি সুকুমার দাস এর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন  বাংলাদেশ ট্রাক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন গভঃ রেজিঃ নং-বি-২৮৬৮ এর সাধারণ সম্পাদক মোঃ মুরাদ আহমেদ, কোষাধ্যক্ষ সাইফুল্লাহ হারু, বাংলাদেশ ট্রাক বন্দোবস্তকারী শ্রমিক ইউনিয়ন রেজি নং- বি-১৭৬৮ এর সহ-সভাপতি রনজিৎ কুমার দাস, শ্রমিক নেতা রমজান আলী, মোঃ সুলতান, মোঃ আসাদ, মোঃ শরিফ প্রমুখ। বক্তারা বলেন বিশ্ব ব্যাপী শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার ইতিহাসে স্মরনীয় দিনটি সারা বিশ্বের সঙ্গে বাংলাদেশেও পালিত হয়ে আসছে। মহান মে দিবসও আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস। আন্তর্জাতিক শ্রমিক সংহতি দিবস হিসেবে এ দিনটি ১৮৯০ সাল থেকে পালিত হয়ে আসছে। দৈনিক ৮ ঘন্টা কর্ম সময়ে দাবী প্রথম উঠে অ্যামেরিকার বাল্টিমর শহরে ১৮৬৬ সালে। এর ২০ বছর পর ১৮৮৬ সালে ১ মে শিকাগর  হে মার্কেটের একটি কারখানায় শ্রমিকরা ৮ ঘন্টা কর্ম সময়ে দাবীতে ধর্ম ঘট শুরু করেন।  এদিন যে আন্দোলন সুচিত হয় তা ৩ ও ৪ মে তারিখে চুড়ান্ত রুপ লাভ করে । ৩ মে পুলিশের গুলিতে ৫ জন শ্রমিক প্রাণ হারান। এই শ্রমিক হত্যার প্রতিবাদে ৪ মে শিকাগতে এক বিরাট শ্রমিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।  শ্রমিক শ্রেণীর লাগাতার সংগ্রামের ট্রিগার পয়েন্ট ১লা মে দিন টিকেই শ্রমিক শ্রেণীর অধিকার প্রতিষ্ঠার সংগ্রামের ও বিজয়ের প্রতিকী দিবস হিসেবে ধার্য করা হয়।