শুক্রবার ১২ অগাস্ট ২০২২ ২৮শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে যুদ্ধাপরাধীদের ছেড়ে দেবে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ‘কেউ-ই এ দেশকে ধ্বংস করতে পারবে না। দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমরা জয়ী হব।’ তিনি এই সরকারের অসমাপ্ত কাজ শেষ করতে আবারও আওয়ামী লীগকে ভোট দিতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।
গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে পৌরসভার মাঠে আয়োজিত জনসভায় প্রধানমন্ত্রী এ আহ্বান জানান। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় গেলে স্বাধীনতাবিরোধী শক্তির সহযোগিতায় দেশকে ধ্বংসের দিকে নিয়ে যাবে। তারা এই সরকারের গৃহীত সব উন্নয়নকাজ বন্ধ করে দেবে এবং যুদ্ধাপরাধের বিচার বন্ধ করে তাদের ছেড়ে দেবে।’
বিরোধীদলীয় নেতার সমালোচনা করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে দেশে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ আর দুর্নীতি বাড়ে। দেশের টাকা সিঙ্গাপুরে পাচার হয়। আমরা সেই টাকা দেশে ফেরত এনেছি।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপির নেত্রী খুনিদের পছন্দ করেন। তাই তিনি খুনিদের নিয়েই চলেন। ১৯৭৫ সালে সপরিবারে বঙ্গবন্ধুর খুনিদের জিয়া বিদেশে চাকরি দিয়ে পুনর্বাসন করেছেন। আমরা ক্ষমতায় এসে খুনিদের বিচার করেছি। এখন দেশে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের রায় হচ্ছে। বিরোধী দলের নেতা যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা করতে চাইছেন।’

বিএনপি-জামায়াতকে সন্ত্রাসী উল্লেখ করে শেখ হাসিনা তাঁদের ব্যাপারে জনগণকে সতর্ক থাকার আহ্বান জানান।

ইসলামপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে জনসভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ মির্জা আজম, খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, ভূমিমন্ত্রী রেজাউল করিম, সংস্কৃতিমন্ত্রী আবুল কালাম আজাদ, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আহামঞ্চদ হোসেন। জনসভায় দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহসান হাবীব হূদেরাগে আক্রান্ত হলে তাঁকে ইসলামপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। প্রধানমন্ত্রী জনসভায় শোক প্রকাশ করেন। জনসভায় বক্তৃতা করার আগে প্রধানমন্ত্রী মঞ্চে জামালপুরের বিভিন্ন উপজেলার ২৭টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ২১ প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।

ধলেশ্বরী সেতুর উদ্বোধন: আমাদের টাঙ্গাইল প্রতিনিধি জানান, প্রধানমন্ত্রী জামালপুর যাওয়ার পথে এলাসিনে ধলেশ্বরী নদীর ওপর নবনির্মিত সেতু উদ্বোধন করেন। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন খাদ্যমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক, সাংসদ শওকত মোমেন শাজাহান, সাংসদ একাব্বর হোসেন, সাংসদ খন্দকার আবদুল বাতেন, সাংসদ আমানুর রহমান খান, টাঙ্গাইল পৌরসভার মেয়র সহিদুর রহমান খান, প্রধানমন্ত্রীর সহকারী একান্ত সচিব-২ সাইফুজ্জামান প্রমুখ বক্তব্য দেন। সেতুটি আওয়ামী মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শামছুল হকের নামে নামকরণের ঘোষণা দেন। টাঙ্গাইলের নাগরপুর উপজেলার ধলেশ্বরী নদীর ওপর ২০০৯ সালে সেতুটির নির্মাণকাজ শুরু হয়। ৫১৫ মিটার দীর্ঘ সেতুটি নির্মাণে ৯৪ কোটি ৯৮ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে বলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ জানিয়েছে।

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email