সোমবার ২২ এপ্রিল ২০২৪ ৯ই বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিএনপি নেত্রীর মাথা খারাপ হয়ে গেছে : প্রধানমন্ত্রী

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বিএনপি নেত্রীর মাথা খারাপ হয়ে গেছে ।

সোমবার রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে আওয়ামী লীগ আয়োজিত সমাবেশে প্রধান অতিথি বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বিএনপির আন্দোলন নিয়ে বলেন, বিএনপির ডাকে জনগণ সাড়া দেয় না, তাই জামায়াতকে সঙ্গে নিয়ে বিএনপি আন্দোলনের নামে জঙ্গিবাদী কাজ করছে। তাই জনগণের জানমাল রক্ষায় যা করা দরকার সরকার ঠিক তাই করবে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর ২১ বছর বাংলাদেশের জনগণ যন্ত্রণা ভোগ করেছে, স্বাধীনতা বিরোধীদের মন্ত্রিত্ব দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বর্তমান সরকার শুরু করেছে। বিএনপি এদেশের স্বাধীনতাকে বিশ্বাস করে না। তাই আজও পরাজিত শক্তিকে বিএনপি ভুলতে পারে না। সরকারের এক বছর পূর্তিতে বাংলাদেশের মানুষ আজ শান্তিতে আছে বলেও তিনি জানান।

১৯৭১ সালে স্বাধীনতা যুদ্ধের পর বিধ্বস্ত দেশকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান গড়ে তুলেছিলেন বলে মন্তব্য করে শেখ হাসিনা বলেন, বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে একাত্তরে বাঙালি জাতি যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো। ৭ মার্চের ভাষণে পর সমস্ত জেলায়, মহকুমায় যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ে। আমি যুদ্ধে জীবন দেয়া সবাইকে শ্রদ্ধা জানাই। তিনি বলেন, এ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানেই পাকিস্তানিরা আত্মসমর্পণ করেছিলো। যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশ গড়ে তুলেছিলেন বঙ্গবন্ধু। দুর্ভাগ্য বাঙালি জাতির  যে ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতি বঙ্গবন্ধুকে হারায়। হারায় জাতীয় চার নেতাকে।

এর আগে তিনি বিকেল সাড়ে ৩টায় সমাবেশস্থলে পৌঁছান। সমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য ও সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী।
এ সমাবেশে দলের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম, উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ, আমির হোসেন আমু, সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত, প্রেসিডিয়াম সদস্য মতিয়া চৌধুরী, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট কামরুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত রয়েছেন।

প্রসঙ্গত রবিবার দিনের শেষ সময়ে এসে সমাবেশের অনুমতি পেয়েছে আওয়ামী লীগ। জানা যায়, রবিবার রাতে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) পক্ষ থেকে এ অনুমতি দেয়া হয়। এর আগে দলটির পক্ষ থেকে ডিএমপির কাছে সমাবেশের অনুমতি চাওয়া হয় বলে জানিয়েছেন মহানগর পুলিশের রমনা উপকমিশনার  (ডিসি) আবদুল বাতেন। অন্যদিকে ডিএমপির একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, রাজধানীতে সভা সমাবেশের ওপর অনির্দিষ্টকালের নিষেধাজ্ঞা এখনো বহাল আছে। তবে সরকারি দল আওয়ামী লীগের সমাবেশের জন্য সেটা শিথিল হয়েছে। কারণ তারা কোন নাশকতা করবে না বলেও নিশ্চয়তা পাওয়া গেছে।

Spread the love