সোমবার ১৬ মে ২০২২ ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিক্রি বাড়াতে বড়পুকুরিয়া খনিতে কয়লার মূল্য হ্রাস

দিনাজপুর প্রতিনিধি : দিনাজপুরের বড়পুকুরিয়া কয়লা খনিতে কয়লার মূল্য হ্রাস করা হয়েছে।, পুর্বের মূল্য অপেক্ষা কয়লার মূল্য টনপ্রতি ২হাজার ৪শ টাকা কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন প্রতিটন কয়লা ১০ হাজার ২শ টাকা নির্ধারন করা হয়েছে। বর্তমানে কয়লার মজুত বৃদ্ধি পাওয়ায় কয়লার বিক্রি বাড়াতেই ফেব্রুয়ারী মাসের প্রথম দিন থেকে এই উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে বলে কতৃপক্ষ জানিয়েছেন।

খনির সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, এর পুর্বে প্রতি টন ২০১৩ সালের অক্টোবর পর্যন্ত  প্রতি টন কয়লার মুল্য ছিল ১১ হাজার ৫শ টাকা কিন্তু ঐ সালের নভেম্বর মাস থেকে কয়লার মূল্য বৃদ্ধি করে প্রতিটন  কয়লার মূল্য ১২ হাজার ৬শ টাকা নির্ধারন করা হয়। এতে কয়লার দাম বুদ্ধি পাওয়ায় কয়লার বিক্রি কমে যায়। যার ফলে অবিক্রিত কয়লার মজুত বৃদ্ধি পেতে থাকে। বর্তমানে অবিক্রিত মজুত কয়লার পরিমান ৪ লাখ মে.টন। অতিরিক্ত কয়লার মজুত বৃদ্ধি পাওয়ায় মজুত কয়লার স্তুপে দুর্ঘটনার আশংকা থাকায় খনি কতৃপক্ষ কয়লার বিক্রি বৃদ্ধি করতে টন প্রতি কয়লার মুল্য ২ হাজার ৪শ টাকা কমিয়ে প্রতিটন কয়লার মূল্য ১০ হাজার ২শ টাকা নির্ধারন করেছে।

খনির মহাব্যাবস্থাপক (মাইনিং) হাবিব উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, বিদেশ থেকে আমদানীকৃত কয়লা অপেক্ষা বড়পুকুরিয়া খনির কয়লা অনেক উন্নত ও সালফারের পরিমান কম এতে জ্বালানীতে সাশ্রয় ও পরিবেশ বান্ধব হওয়ায় বড়পুকুরিয়া খনির কয়লার চাহিদাও অনেক বেশি। তিনি আরো বলেন প্রতিদিন খনিতে গড়ে ৫ থেকে ৬ হাজার মে.টন কয়লা উৎপাদন হয়।

অপরদিকে বড়পুকুরিয়া তাপবিদুৎ কেন্দ্রে প্রতিদিন ২হাজার থেকে ২হাজার ৫শ মে.টন কয়লা প্রয়োজন হয়। একারনে প্রতিদিনেই ৩ হাজার থেকে ৪ হাজার মে.টন কয়লা অবিক্রিত মজুত হয়, এই কয়লা খনি কতৃপক্ষ বিভিন্ন ইটভাটা মালিক ও বয়লার চালিত কলকার খানার মালিকের নিকট বিক্রি করে।

এদিকে কয়লার মুল্য কমে যাওয়ায় খনিতে কয়লা বিক্রি বেড়ে গেছে খনি ইয়াডে শতশত ট্রাক কয়লা বহন করার জন্য সকাল থেকে জড়ো হতে দেখা গেছে।

 

 

 

Please follow and like us:
error
fb-share-icon
RSS
Follow by Email